Peru's First Female President: পেরুর প্রথম মহিলা প্রেসিডেন্ট হলেন ডিনা বোলুয়ার্ত
Dina Boluarte (Photo Credit: IANS)

লিমা : "স্থায়ী নৈতিক অক্ষমতা"র (permanent moral incapacity) অভিয়োগে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি পেদ্রো ক্যাস্টিলোর ( Pedro Castillo) অভিশংসনের ( impeachment) পরে  পেরুর ভাইস প্রেসিডেন্ট ডিনা বোলুয়ার্ত ( Dina Boluarte) দেশের প্রথম মহিলা প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন। সিনহুয়া নিউজ এজেন্সির খবর অনুসারে, কংগ্রেস ক্যাস্টিলোকে ১০১ ভোট দিয়ে বরখাস্ত করার পরই বুধবার বোলুয়ার্টে শপথ গ্রহণ করেন। ৬০ বছর বয়সী আইনজীবী বোলুয়ার্টে বলেন, ২০২৬ সালের জুলাই পর্যন্ত তিনি শাসন করবেন কারণ এ সময় ক্যাস্টিলোর প্রেসিডেন্টের মেয়াদ শেষ হয়ে যেত । শপথ গ্রহণের পর তিনি দেশকে যে সঙ্কটের মধ্যে দিয়ে নিয়ে গেছে তা থেকে উত্তরণের জন্য রাজনৈতিক যুদ্ধবিরতির আহ্‌বান জানান এবং দেশকে উদ্ধার করার সময় চান সবার কাছে। India Offers Support for Diplomatic Efforts: রাশিয়া, ইউক্রেনকে কূটনৈতিক প্রচেষ্টায় সমর্থনের প্রস্তাব দিল ভারত সরকার

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে একাধিক প্রেসিডেন্টকে ক্ষমতাচ্যুত করার মধ্য দিয়ে পেরু একটি কঠিন রাজনৈতিক সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। ২০২০ সালে,পাঁচ দিনের ব্যবধানে তিনজন প্রেসিডেন্ট পরিবর্তন হয়। ক্যাস্টিলো একজন বামপন্থী প্রাক্তন স্কুল শিক্ষক। তিনি 2021 সালের জুন মাসে একটি মেরুকরণকারী নির্বাচনে নির্বাচিত হন, যেখানে তিনি তার ডানপন্থী প্রতিদ্বন্দ্বী কেইকো ফুজিমরিকে (Keiko Fujimori) পরাজিত করেন। ২০২১ সালের জুলাইয়ে ক্ষমতায় আসার পর এটাই ছিল তাঁর বিরুদ্ধে তৃতীয় অভিশংসন প্রক্রিয়া।

বিবিসির খবরে বলা হয়, বুধবারের নাটকীয় ঘটনার ধারাবাহিকতা শুরু হয় কাস্তিলো জাতীয় টেলিভিশনে একটি ভাষণ দেয়ার মধ্য দিয়ে। এতে তিনি জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেন। তিনি ঘোষণা করেছিলেন যে তিনি বিরোধী-নিয়ন্ত্রিত কংগ্রেসকে ভেঙে দেবেন, এই পদক্ষেপটি পেরুতে উভয় ধাক্কা খেয়েছিল, প্রতিবাদে এবং বিদেশে বেশ কয়েকজন মন্ত্রী পদত্যাগ করেছিলেন। পেরুর জাতীয় পুলিশ (পিএনপি) জানিয়েছে, কংগ্রেসের পরিবর্তে 'ব্যতিক্রমী জরুরি সরকার' (exceptional emergency government) গঠনের কথা বলার পর সাবেক প্রেসিডেন্টকে আটক করা হয়েছে। টুইটারে আরও জানানো হয়েছে যে তাঁদের ক্ষমতা এবং গুণাবলী অনুযায়ী পিএনপি প্রেসিডেন্ট পেদ্রো ক্যাস্টিলোকে আটক করা হয়েছে। পিএনপি প্রকাশিত ছবিতে কাস্তিলোকে লিমার দ্বিতীয় পুলিশ অঞ্চলের সদর দপ্তরে একটি আর্মচেয়ারে বসে থাকতে দেখা গেছে। স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, কংগ্রেস ভেঙে দেওয়ার ঘোষণার পর ক্যাস্টিলো তার স্ত্রী ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী অ্যানিবাল টোরেসসহ পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সরকারি প্রাসাদ ত্যাগ করেন।