কলকাতা ছেড়ে বিদায় নিয়েছে মৌসুমি বায়ু; বর্ষা বিদায়ে মহানগরের বাতাসে বাড়ছে ধূলিকণা!
প্রতীকি ছবি (Photo Credits: PTI)

কলকাতা, ২২ অক্টোবর: খাতায়-কলমে কলকাতা (Kolkata) ছেড়ে বর্ষা (Moonsoon) বিদায় নিয়েছে বলেই খবর হাওয়া অফিস সূত্রে (Weather Office)। কারণ বঙ্গ (West Bengal) ছেড়ে বিদায় নিয়েছে মৌসুমি বায়ু। তারপর থেকেই কলকাতার বাতাসে বাড়ছে দূষণের (Pollution) বিষ। এবার এমনটাই খবর শোনাল দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ (Pollution Control Board)। বর্ষা বিদায়েই মহানগরের বাতাসে বাড়ছে ধূলিকণা (Dust), খবর মিলেছে এমনটাও। দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের বোর্ড বলছে, মাত্রা ছাড়া দূষণে প্রাণ ওষ্ঠাগত তিলোত্তমার।

আজ কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে যথাক্রমে ৩৩ ডিগ্রী সেলসিয়াস। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকবে ২৯ ডিগ্রী সেলসিয়াস। সারা দিন বৃষ্টির (Rain) সম্ভবনা নেই। মাঝে মধ্যেই হেমন্তের আকাশে (Sky) ঝলমলিয়ে উঠতে পারে সূর্য (Sun)। মোটের উপর আবহাওয়ার শরীর থাকবে সুস্থ। আকাশ থাকবে পরিস্কার, এমনটাই বলছে আবহাওয়া রিপোর্ট (Weather Report)। তবে দূষণের পরিমাণ কি আরও বাড়বে? কলকাতার ফুসফুসে কি আরও জমা হবে বিষ! চিন্তা বাড়ছে মহানগরবাসীর। উৎসবের (Occassion) মরশুম মানেই কি দূষণের চোখরাঙানি?ওয়ার্ল্ড হেল্থ অর্গানাইজেশনের (হু) (World Health Organisation) নির্ধারিত সূচক অনুযায়ী, বাতাসে প্রতি ঘনমিটারে ভাসমান সূক্ষ্ম ধূলিকণা থাকার কথা ২৫ মাইক্রোগ্রাম। কিন্তু লক্ষ্মীপুজোর দিন (Laxmi Puja) কলকাতার বাতাসে ধূলিকণার পরিমাণ ছিল ২০০ মাইক্রোগ্রাম। তারপর থেকে প্রতিদিনই প্রায় ১৭০ থেকে ১৮০ মাইক্রোগ্রাম ধূলি কণা থাকছে কলকাতার বাতাসে। যার ফল হতে চলেছে ভয়ঙ্কর। রবিবার ছুটির দিনে (Sunday) রাস্তায় গাড়ির সংখ্যা তুলনামূলক কম থাকে। কিন্তু তা সত্ত্বেও ভিক্টোরিয়া (victoria) বা বালিগঞ্জ (Ballyganj) গুরুসদয় দত্ত রোডে দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের বোর্ডে দেখা গিয়েছে, সূচক ছাড়িয়েছে দূষণ। কালী পুজো (kali Puja) সমাগত। ফাটবে বাজি (Firework)। দূষণ যে আরও বিপুল পরিমাণে বাড়বে তা আর বলার অপেক্ষা থাকে না। কিন্তু কী হবে উপায়? আরও পড়ুন: আসছে শীত...শহর জুড়ে যেন প্রেমের মরশুম; আজও বৃষ্টি ভিজবে কলকাতা

সামনেই আসছে শীত (Winter)। দূষণের সূচক সীমা ছাড়ালেই সরকারিভাবে মাইকিং করে সতর্ক করা হোক। ইলেকট্রিক বার্নার (Electric Burner) বা এয়ার আয়োনাইজার বসালেও কমতে পারে দূষণ, বলছেন পরিবেশবিদরা (Environmentalist)।