West Bengal Assembly Elections 2021: উন্নয়নের ১০ বছরের 'রিপোর্ট কার্ড' নিয়েই বিধানসভা নির্বাচনের প্রচার শুরু তৃণমূলের
তৃণমূল কংগ্রেস (Picture Credits: Wikimedia Commons)

কলকাতা, ১৬ ডিসেম্বর: আর মাত্র কয়েকমাস, আগামী বছরেই রাজ্য়ে বিধানসভা নির্বাচন (West Bengal Assembly elections 2021)। তৃতীয়বার ক্ষমতার আসার স্বপ্ন দেখছে তৃণমূল কংগ্রেস (Trinamool Congress)। নির্বাচনের এখনও ৬ মাস বাকি থাকলেও তার রাজনৈতিক উত্তাপ ছড়াচ্ছে রাজ্যে। এবার সরকারের সাফল্য তুলে ধরতে প্রশাসনিক ও রাজনৈতিক স্তরে এই জোড়া কর্মসূচি শুরু করেছে শাসকদল তৃণমূল। মা মাটি মানুষের সরকারের এক দশকেরও বেশি সময়ের ‘রিপোর্ট কার্ড’ (Report card) প্রকাশ করা হয়েছে ইতিমধ্যেই। তাতে কয়েকটি দপ্তরের কাজের খতিয়ান প্রকাশ করা হয়েছে। এই ‘রিপোর্ট কার্ড’ নিয়েই দলের জনপ্রতিনিধিরা ঘুরবেন নিজের এলাকায়। সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরবেন সরকারের কাজের খতিয়ান। এই প্রচার কর্মসূচির নাম দেওয়া হয়েছে ‘বঙ্গধ্বনি’।

এক নজরে কী কী রয়েছে তৃণমূলের রিপোর্ট কার্ডে:

  • শিক্ষা, ক্রীড়া, শিল্প ও সংস্কৃতি খাতে বাজেট বরাদ্দে তিন গুণ বৃদ্ধি
  • ৩০টি নতুন বিশ্ববিদ্যালয় ও ৫০টি নতুন কলেজ স্থাপন
  • ১১৩ লক্ষ শিশুকে মিড-ডে মিল
  • প্রতি ব্যক্তির গড় আয় দ্বিগুণেরও বেশি বেড়েছে। জিডিপি ৫৩% বেড়ে ৪.৫১ লক্ষ কোটি টাকা থেকে ৬.৯ লক্ষ কোটি টাকা হয়েছে
  • কৃষিতে ৩০%, শিল্পে ৬০% এবং পরিষেবা খাতে ৬২% বৃদ্ধি হয়েছে
  • ১০০ দিনের কাজ সুনিশ্চিত করেছে ১.৬৩ কোটি কর্মসংস্থান
  • কারখানার সংখ্যায় ১৫% বৃদ্ধি এবং
  • কারখানার শ্রমিকদের উপার্জনে ৭৭% বৃদ্ধি
  • গত ১০ বছরে স্বাস্থ্যক্ষেত্রে বাজেট বেড়েছে ৩ গুণেরও বেশি। ১,২৯১ কোটি টাকা ব্যয় করে 'স্বাস্থ্য সাথী' প্রকল্পের আওতায় ১৩.২ লক্ষ মানুষের চিকিৎসা হয়েছে।
  • বাংলায় খাদ্য সাথী-র সাফল্য আজ কারো অজানা নয়। ৯.৫ কোটি মানুষ আজ ভর্তুকিযুক্ত খাদ্যশস্য পাচ্ছেন এবং ৮.২ কোটি উপভোক্তা পাচ্ছেন মাসিক ২ কেজি চাল ও ৩ কেজি গম। এছাড়াও সকলের জন্য ২০২১ অবধি নিখরচায় রেশন।

রিপোর্ট কার্ড পড়তে ও ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

  • গত ১০ বছরে, 'বাংলা আবাস যোজনা' প্রকল্পের আওতায় পশ্চিমবঙ্গের ৩৩.৭ লক্ষ পরিবার মাথার উপর ছাদ পেয়েছে। এ ছাড়াও, ২০১২ থেকে আজ পর্যন্ত 'নির্মল বাংলা' প্রকল্পে ৮২.৬ লক্ষেরও বেশি শৌচালয় নির্মাণ হয়েছে এবং প্রতিটি গ্রাম পঞ্চায়েত ও ব্লক আজ উন্মুক্ত শৌচ মুক্ত।
  • SC/ST উন্নয়ন খাতে বাজেট বরাদ্দ দ্বিগুণ বেড়েছে
  • ৯১.৮ লক্ষ SC/ST পড়ুয়া শিক্ষাশ্রী দ্বারা উপকৃত হয়েছে
  • ১২ লক্ষ SC/ST বরিষ্ঠ নাগরিককে মাসিক পেনশন দেওয়া হয়েছে
  • ৬.৫ লক্ষ মহিলা 'রূপশ্রী' দ্বারা উপকৃত হন
  • পঞ্চায়েতে মহিলা সংরক্ষণ ৩৩% থেকে বেড়ে ৫০% হয়
  • ৬.৭ লক্ষেরও বেশি সেল্ফ-হেল্প গ্রূপে ৯০ লক্ষেরও বেশি মহিলা নিযুক্ত হন
  • ১০০% ঘরে বিদ্যুৎ সরবরাহ
  • ব্যক্তি প্রতি বিদ্যুৎ ব্যবহারে ৩০% বৃদ্ধি
  • ১,১৮,১২৮ কিলোমিটার নতুন এবং উন্নততর গ্রামীণ সড়ক তৈরী করা হয়েছে
  • এসএসওয়াই-এর আওতায় ১.২৯ কোটিরও বেশি অসংগঠিত কর্মীকে স্বাস্থ্য ও দুর্ঘটনাজনিত সুবিধা প্রদান
  • ১৭.৩ লক্ষেরও বেশি প্রবীণ নাগরিক, বিধবা এবং প্রতিবন্ধী মানুষকে মাসিক পেনশন প্রদান
  • কৃষি ও অনুসারী ক্ষেত্রে বাংলার বাজেট বরাদ্দ পাঁচ গুণ বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে
  • 'কৃষক বন্ধু' প্রকল্পের আওতায় ৪৬.৯২ লক্ষ কৃষক উপকৃত হয়েছেন
  • কৃষক পরিবারের আয় প্রথম ৫ বছরেই ৬৩% বৃদ্ধি পেয়েছে

রাজ্যের ২৯৪টি বিধানসভা কেন্দ্রে সরকারের উন্নয়নের খতিয়ান তুলে ধরবে ৯৫০টি দল। প্রায় আড়াই লাখ কিমি অঞ্চল ঘুরে দলটি গত ১০ বছরের রিপোর্ট কার্ড সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দেবেন। মানুষই বিচার করবেন তাঁরা এই সরকারের আমল কী পেলেন আর কী পেলেন না।