গেরুয়া রাজনীতিতে এবার টলিগঞ্জ , বিজেপিতে যোগ দিলেন টলিউডের একঝাঁক তারকা
বিজেপিতে যোগদান পর্ব (Photo Credit: Twitter)

কলকাতা, ১৮ জুলাই: এযেন ধুম পড়েছে, বাংলা থেকে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার ধুম। এবার সেই ধুমে শামিল হলেন টলিপাড়ার এক ঝাঁক তারকা। বৃহস্পতিবার বিকেলে দিলীপ ঘোষের হাত ধরে দিল্লিতে গিয়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন টলিউড ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির এক ঝাঁক তারকা। বিজেপির রাজ্যসভাপতি দিলীপ ঘোষের সঙ্গে পরামর্শ করেই দিল্লি যায় তারকাদের এই দলটি। তারপর আজ বিকেলে দিল্লিতে দলের সদর দপ্তরে একে একে বিজেপির পতাকা হাতে তুলে নেন প্রত্যেকে।  আরও পড়ুন- ‘আমারে দাবায়ে রাখা যাবে না’, বিধাননগরের মেয়র পদ ছেড়ে প্রকাশ্যে হুমকি সব্যসাচীর

বিজেপিতে যোগ দেওয়া এই টলি তারকারা হলেন, রূপাঞ্জনা মিত্র, পার্নো মিত্র, মৌমিতা গুপ্ত, ঋষি কৌশিক, অরিন্দম হালদার(লামা), কাঞ্চনা মৈত্র-সহ আরও অনেকে। এই দলেই ছিলেন  অভিনেত্রী অঞ্জনা ঘোষ ও অভিনেতা কৌশিক, তাঁরা আগেই বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। এদিনের এই যোগদান পর্বে কলকাতার কৌলীন্যে নিজেদের একটা পাকাপোক্ত স্থানে দেখার চষ্টা করছে বিজেপি। কেননা দলে লকেট চট্টোপাধ্যায় বা রূপা গাঙ্গুলীর মতো অভিনেত্রী থাকলেও নুসরত জাহান কিম্বা মিমি-র সঙ্গে টক্কর নেওয়ার কাউকেই এতদিন দলে টানতে পারেনি গেরুয়া শিবিৎ। আজকের চাঁদের হাট কিন্তু অন্যকথা বলছে। কলকাতার সুশীল সমাজে যে বিজেপি এবার ঢুকে পড়তে চলেছে এটা তারই চাবিকাঠি বলা যেতে পারে।

অন্যদিকে মুকুল রায় যেদিন থেকে বঙ্গ বিজেপিতে নিজের কৃতিত্ব দেখাতে শুরু করেছেন সেদিন থেকেই বেশ চাপে ছিলেন দিলীপ ঘোষ। তিনি বিজেপির রাজ্য সভাপতি হলেও ঘরেবাইরে তেমন কোনও গুরুত্ব পেতেন না। বরং আলটপকা মন্তব্য করার জন্য মাঝমধ্যেই দলীয় নেতৃ্তবের কাছে তাঁকে কথা শুনতে হত। সেই অবস্থাতেই বাংলায় বিজেপির জন্য মাটি তৈরির চেষ্টা করেছেন। কিন্তু মুকুল রায় এসেই ক্ষীর খেলে ক্ষোভ তো থাকবেই। এদিকে ফের মোদি সরকার ক্ষমতায় এল, বাংলায়ও ভালই ফল করল বিজেপি। এর কৃতিত্ব গেল রায়বাবুর ঘরে, ঘোষবাবু তাতে বেজায় চটলেও মুখ খুললেন না। কেননা মুকুলের হাত ধরে তখন তৃণমূল থেকে দল বদলে বিজেপিতে আসার লাইন লেগেছে। এই পাশা উল্টোতে সময় লাগল না। আচমকা বিজেপি ছাড়াতে শুরু করলেন সদ্য তৃণমূল ত্যাগ করা কাউন্সিলর বিধায়করা। দিল্লিতে রায়বাবুর মুখ পুড়তেই সুযোগটা কাজে লাগালেন ঘোষবাবু। তাঁর হাত ধরে গেরুয়া রাজনীতিতে প্রবেশ করল টলিউড। ফের ফোরগ্রাউন্ডে দিলীপ ঘোষ।