‌মোদি–শাহের নির্দেশেই সিদ্ধান্ত কমিশনের:‌ মমতা
কালীঘাটে সাংবাদিক বৈঠকে মমতা ব্যানার্জি( Credit-ANI)

৭ মে। ২০১৯: এর আগে কখনও এমন নির্দেশ দেয়নি নির্বাচন কমিশন( Election Commission)। দেশের ইতিহাসে এই প্রথম পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনে ৩২৪ ধারা প্রয়োগ করা হল। প্রচারের সময় কমল একদিন। বৃহস্পতিবার রাত ১০টার পরেই শেষ দফা নির্বাচনের প্রচার শেষ করার নির্দেশ দিয়েছেন নির্বাচন কমিশন। একই সঙ্গে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব অত্রি ভট্টাচার্যকে।

কমিশনের এই সিদ্ধান্তে অত্যন্ত রুষ্ট তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা ব্যানার্জি(Mamata Banerjee)। রাতেই কালীঘাটে সাংবাদিক বৈঠক করে বলেন, অসাংবিধানিক রাজনৈতিক পক্ষপাতদুষ্ট সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন। ৩২৪ ধারা প্রয়োগ করে রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন জারির মতো পরিস্থিতি তৈরি করতে চাইছে কমিশন এমনও অভিযোগ করেছেন তিনি। এই সিদ্ধান্তে যে মোদি এবং অমিত শাহের নির্দেশ রয়েছে তাও সরাসরি অভিযোগ করেছেন তৃণমূল নেত্রী। কমিশনকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে মমতা বলেছেন, বিন্দুমাত্র ইভিএমে কারচুপির খবর পেলেই তিনি সুপ্রিম কোর্টে (Supreme court)যাবেন।

রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব অত্রি ভট্টাচার্যকে (Atri Bhattacharya)উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে সরানো হয়েছে। বিজেপির রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছেন স্বরাষ্ট্রসচিব। সাংবাদিক বৈঠক করে এমনও অভিযোগ করেছেন মমতা।

মঙ্গলবার অমিত শাহের মিছিলে বাইরে থেকে লোক এনে গণ্ডগোল বাঁধানো হয়েছিল। সেদিকে নজর না দিয়ে উল্টে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলার নিয়ে প্রশ্ন তোলা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।

যাঁদের নির্বাচন কমিশন বিশেষ পর্যবেক্ষক (Special Observer)হিসেবে নিয়োগ করেছে তাঁরা অবসরপ্রাপ্ত কর্মী। বেআইনি ভাবে এই বিশেষ পর্যবেক্ষক নিয়োগ করা হয়েছে। রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব কমিশনকে চিঠি দিয়ে রাজ্য পুলিসকে সঙ্গে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে কাজ করার কথা বলেছিলেন। সেই চিঠি লেখার অপরাধেই তাঁকে সরানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তৃণমূল নেত্রী।

প্রচারের সময়সীমা কমিয়ে দিলেও তিনি দমে যাবেন না বলে জানিয়েছেন বৃহস্পতিবারের মধ্যেই তাঁর নির্ধারিত কর্মসূচি তিনি শেষ করবেন বলে জানিয়েছেন। বিজেপির(BJP) এই ষড়যন্ত্রের জবাব বাংলার মানুষ ভোটবাক্সে দেবেন বলে কমিশনকে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মমতা।