Kolkata Air Pollution on Kali Puja: কালীপুজোর রাতে কলকাতায় শব্দদূষণের সঙ্গে বায়ুদূষণের দাপট
কালীপুজোয় বাজির দাপটে শহরে দূষণ। (Photo credits: Unsplash)

কলকাতা, ২৯ নভেম্বর: Kolkata Air Pollution on Kali Puja: কালীপুজোয় এবার শব্দদূষণের সঙ্গে এবার বায়ুদূষণের মাত্রাও বেশ ছিল। যদিও পরিসংখ্যান বলছে, গত কয়েক বছরের থেকে এবার শহরে বায়ুদূষণের মাত্রা কিছুটা কম। তবে এবার রাত যত বেড়েছে, শব্দ আর বায়ু দূষণ তত বেড়েছে শহরের। কলকাতায় বায়দূষণের সমস্যা বেশ বিপজ্জনক মাত্রাতে থাকলেও, আম জনতার মাঝে সেভাবে সচেতনার অভাবে এবারও দীপাবলিতে বাজির প্রকোপে শব্দদূষণের সঙ্গে বায়ুদূষণও বেশী মাত্রায় দেখা দিল। টাইমস অফ ইন্ডিয়ায় প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, কালীপুজোর মধ্যরাতে ভাসমান ধূলিকনার (পিএম-১০)-এর পরিমাণ ছিল এক হাজার মাইক্রোগ্রাম, যা সুরক্ষার মাত্রা ( 60 µg/m) থেকে বেশি। গত বছর যার মাত্রা ছিল ১১২০-১৫০০ এর মধ্যে। এ বছর কালীপুজো-দীপাবলি একই দিনে পড়ায় দূষণ কিছুটা কমেছে। শব্দদূষণ ঠেকাতে শব্দহীন বাজির দিকে বেশি জোর দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু দেখা যাচ্ছে শব্দহীন বাজি থেকে আবার বেশি বায়ুদূষণ ছড়াচ্ছে।

কলকাতা পুলিশ এবং দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের তরফে বাজি পোড়ানোর জন্য সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছিল রাত আটটা থেকে দশটা। কিন্তু সেই নিয়ম কতটা পালন হয়েছে তা নিয়ে রীতিমত প্রশ্ন রয়েছে। কলকাতায় বায়ুসূচক ছিল 'সন্তোষজনক' বলে প্রকাশ। শহরের রবীন্দ্রভারতী, রবীন্দ্র সরোবর, ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল-সহ সব জায়গায় বাতাসের মান ছিল সন্তোষজনক। তবে উত্তর ও দক্ষিণ কলকাতার বিভিন্ন অংশে বায়ু দূষণের মাত্রা বেশ ছিল। আরও পড়ুন-দীপাবলি ধামাকা অফার BSNL-র, দেশজুড়ে ফ্রিতে কথা বলুন সব নেটওয়ার্কে

রাজ্য দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ড সূত্রে জানা গিয়েছে, রাত ১১ টা নাগাদ যে বায়ুমানের মাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে তা থেকে গোটা জায়গায় আসল ছবিটা ধরা পড়েনি। তাদের কথা অনুযায়ী বেশ কিছু অঞ্চল ছিল যার বায়ুদূষণের মাত্রা রেকর্ড করা সম্ভব হয়নি। এমন বেশ কিছু জায়গা ছিল যেখানে রাতের দিকে অনেক বায়ু দূষণকারী আতসবাজি পোড়ানো হয়েছে।

অতি সূক্ষ্ম ধূলিকণা (পিএম ২.৫)-র গড় শহরে কোথায় কত

বালিগঞ্জ ১৮৫, ভিক্টোরিয়া ১১৫, যাদবপুর ১৩৮, ফোর্ট উইলিয়াম ১৫৫, রবীন্দ্র সরোবর ১৬১, যাদবপুর ১৪০, বিধাননগর ১৩৮, রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয় ১৬৪