Covishield Doses Unavailability In Kolkata: টিকার আকাল, মঙ্গলবার থেকে কলকাতায় মিলবে না কোভিশিল্ড
করোনা ভ্যাকসিন

কলকাতা, ৯ আগস্ট: ঘাটতিই ভিলেন, মঙ্গলবার থেকে কলকাতায় অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ কোভিশিল্ডের টিকাকরণ (Covishield Dose)৷ এর জেরে বিপাকে পড়েছেন কোভিশিল্ডের প্রথম ডোজ নিয়ে নেওয়া প্রচুর বাসিন্দা৷ কোভ্যাক্সিনের জোগান থাকলেও কোভিশিল্ড প্রয়োজনের তুলনায় কম আসায় এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে বলে কলকাতা পুরসভার তরফে খবর৷ এই প্রসঙ্গে পুর প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম কেন্দ্রের বিরুদ্ধেই অভিযোগ তুলেছেন৷ এদিকে গত শনিবার কলকাতায় কোভিশিল্ডের ডোজ এসেছে সাড়ে তিন লাখ ও কোভ্যাক্সিনের এক লাখ ডোজ৷ পুরসভার তরফে কোভিশিল্ড টিকা দেওয়ার কথা জানানো হলেও বাস্তব চিত্র অন্য কথা বলছে৷ মঙ্গলবার থেকে অনির্দিষ্ট কালের জন্য কোভিশিল্ড দেওয়া বন্ধ হয়ে যাচ্ছে কলকাতায়৷ এই আকালের মধ্যে বড় খবর হল রাজ্যের ৭০ শতাংশ মানুষ টিকার আওতাতেই আসেনি এখনও৷ আরও পড়ুন-Anupam Shyam Dies: মাল্টি অর্গ্যান ফেলিওর, প্রয়াত অভিনেতা অনুপম শ্যাম

স্বাস্থ্য দপ্তরের রিপোর্ট বলছে, কেন্দ্র থেকে আসা কোভিশিল্ডের টিকার মধ্যে ৪০ হাজার ডোজ কলকাতার জন্য বরাদ্দ৷ এর মধ্যে ৩০ হাজার ডোজ কলকাতা পুরসভার স্বাস্থ্যকেন্দ্রের জন্য বরাদ্দ৷ এই পরিস্থিতিতে কোভিশিল্ডের সেকেন্ড ডোজের জন্য অপেক্ষারতরা বেশ বিপাকে পড়েছেন৷ অন্যদিকে দেশে টিকাকরণে এখনও পর্যন্ত ৪৪ কোটি ২০ লক্ষ ৬৮ হাজার কোভিশিল্ড ব্যবহার করা হয়েছে। কোভ্যাক্সিন ব্যবহার করা হয়েছে ৬ কোটি ১৫ লক্ষ ২৮ হাজার ৬৪৭। ৫ লক্ষ ৭৬ হাজার ৬৪৮ স্পুটনিক-ভি ব্যবহার করা হয়েছে। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে ১৮-র ঊর্ধ্বে সামগ্রিক টিকাকরণ সেরে ফেলতে ইতিমধ্যেই ১০০ কোটি ৬০ লক্ষ টিকার বরাত দেওয়া হয়েছে৷ আগেভাগে দেশের শীর্ষ আদালতকে এই তথ্য দিয়েছে কেন্দ্র৷   এমতাবস্থায় কলকাতায় কোভিশিল্ডের আকাল দেখা দেওয়ায় টিকাকরণ প্রক্রিয়া বড়সড় সমস্যা হতে পারে বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল৷

এদিকে জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা ছাড়পত্র পেয়েছে৷ টিকাকরণের লক্ষ্যপূরণে কেন্দ্র তাড়াহুড়ো করতে গিয়ে কী নতুন টিকার কার্যকারীতা সংক্রান্ত প্রক্রিয়ায় ঢিলেমি দিচ্ছে কি না, তানিয়েও প্রশ্ন উঠেছে৷   যদিও ড্রাগ কন্ট্রোলার অফ ইন্ডিয়ার দাবি, উন্নত প্রযুক্তির সাহায্যে কম সময়ে টিকার কার্যকারীতার পরীক্ষা করা হচ্ছে৷