দুর্গাপুজো কমিটিকে কোনও নোটিশই পাঠানো হয়নি, তৃণমূলের ধর্নার মাঝে জানাল আয়কর দফতর
গতবার দুর্গাপুজো উৎসবে সামিল মুখ্যমন্ত্রী। (Photo Credits: Facebook)

কলকাতা, ১৩ অগাস্ট: দুর্গাপুজোয় (Durga Puja) আয়কর ইস্য়ুতে তৃণমূল কংগ্রেস (TMC) যখন ধর্নায় বসল, তখন আয়কর দফতরের (Central Board of Direct Taxes) তরফে জাাননো হল অন্যরকম কথা। সংবাদসংস্থা ANI-কে প্রকাশিত এক খবর অনুযায়ী সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ডায়রেক্ট ট্যাক্স কর্তৃপক্ষ জানায়, এটা একেবারে পরিষ্কারভাবে জানানো হচ্ছে যে দুর্গাপুজো কমিটিকে আয়কর সংক্রান্ত নোটিশ পাঠানোর যে খবরের কথা বলা হচ্ছে তা মোটের ওপর ভুল এবং আপনার এটা অস্বীকার করছি।

আসল কথা হল, চলতি বছর তাদের পক্ষ থেকে দুর্গাপুজো কমিটিগুলিকে কোনও নোটিশই পাঠানো হয়নি। গত রবিবার টুইটারে দিদি লিখেছিলেন ,'' উৎসব সকলের। কোনও পুজোতে ট্যাক্স বসানো হোক, আমরা চাই না। এটা সংগঠকদের ওপর একটি বাড়তি বোঝা হবে। বাংলা সরকার গঙ্গাসাগর মেলার ওপর থেকে ট্যাক্স সরিয়ে নিয়েছে। আমাদের দাবি, দুর্গা পুজো ও কমিটিগুলির ওপর কোন রকম ট্যাক্স বসানো চলবে না।'' আরও পড়ুন-হাতির উপদ্রবে প্রাণভয়ে গাছের ওপর চড়ে 'নিরাপদে' সংসার

এদিকে, আজ মমতা বন্দোপাধ্য়ায়ের নির্দেশমত দুর্গাপুজো কমিটিগুলিকে আয়কর নোটিসের প্রতিবাদে মঙ্গলবার সকাল থেকে সুবোধ মল্লিক স্কোয়ারে হিন্দ সিনেমা হলের সামলে অবস্থান বিক্ষোভে সামিল হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। দলের 'বঙ্গ জননী শাখা'-র এই ধর্না থেকে প্রশ্ন করা হয়। কেন দুর্গাপুজো কমিটিগুলিকে আয়কর নোটিস পাঠাবে কেন্দ্র? তাঁদের দাবি, বাংলায় পুজো কমিটিগুলি চাঁদা তুলে দুর্গাপুজো করে থাকে। অনেকে এক্ষেত্রে ডোনেশনও দেন। পুজোর সঙ্গে কারোরই কোনও ব্যক্তিগত স্বার্থ জড়িত নয়. তবে কেন আয়কর নোটিস?

তৃণমূলের ধর্নার বিরুদ্ধে বিজেপি-রাজ্যস্তরের শীর্ষস্তানীয় নেতা সায়ন্তন বসু অভিযোগ করেন,চিটফান্ডের টাকায় যেসব পুজো হয়, তাদেরকেই নোটিস পাঠিয়েছে আয়কর দফতর। সঙ্গে এই বিজেপি নেতার কটাক্ষ,"এবার পুজোয় কাটমানি হবে অসুর। টাকা নিয়েছে যখন লজ্জা করেনি, এখন আর কিছু করা যাবে না।" নাকতলার পুজো চিটফান্ডের টাকা লাগে বলেও কটাক্ষ করেন সায়ন্তন বসু।