UEFA Euro 2020: জানুন এবারের ইউরো কাপ নিয়ে জানা-অজানা প্রয়োজনীয় তথ্য
Euro 2020

আর মাত্র কটা দিনের অপেক্ষা। শুক্রবার রাত থেকে শুরু হয়ে যাচ্ছে বিশ্বকাপের সব বিশ্বের সবচেয়ে হাইপ্রোফাইল দেশভিত্তিক ফুটবল টুর্নামেন্ট ইউরো কাপ (UEFA Euro 2020)। ইউরোপ হল বিশ্ব ফুটবলের পাওয়ার হাউস। বিশ্বকাপ সবচেয়ে বেশিবার জিতেছে ইউরোপের দেশগুলিই। সেই ইউরোপের মধ্যে সেরা কে তাই ঠিক হবে ইউরো কাপে। করোনার কারণে গত বছর টুর্নামেন্ট বাতিল করা হয়। তার বদলে এ বছর হচ্ছে সেই টুর্নামেন্ট। আরও পড়ুন: মেসিকে টপকে আন্তর্জাতিক ম্যাচে দ্বিতীয় সর্বাধিক গোলদাতা সুনীল ছেত্রী

করোনার দ্বিতীয় ঢেউতে একটা সময় ইউরোপে এমন খারাপ অবস্থা হয়েছিল, মনে হচ্ছিল এবারও টুর্নামেন্ট হবে না। তবে ইউরোপ জুড়েই করোনার দাপট কমায় আয়োজিত হচ্ছে টুর্নামেন্ট। গতবার ইউরো কাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল পর্তুগাল। এবারের ইউরো নিয়ে থাকল জানা-অজানা বেশ কিছু তথ্য। রাত জেগে খেলা দেখতে বসার আগে জেনে রাখুন তথ্যগুলি।

কবে থেকে শুরু হচ্ছে এবারের ইউরো কাপ

১১ জুন, শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে এবারের ইউরো। করোনার কারণে গতবারের ইউরো এ বছর হচ্ছে। ফাইনাল হবে ১১ জুলাই। মানে এক মাস ধরে চলবে এই টুর্নামেন্ট।

ইউরো কোথায় কোথায় আয়োজিত হচ্ছে

এক নয়, যৌথ আয়োজন নয়। তিনটে দেশ মিলেও নয়। ইউরোর ইতিহাসে এবারই প্রথম মহাদেশের মোট ১১টা দেশের ১১টি শহরে আয়োজিত হচ্ছে ইউরো। এবার যে ১১টি শহরে ইউরো আয়োজিত হচ্ছে সেগুলি হল-- লন্ডন (London) (ইংল্যান্ড), সেন্ট পিটার্সবার্গ (Saint Petersburg) (রাশিয়া), বাকু (Baku)(আজারবাইজান), মিউনিখ (Munich)  (জার্মানি), রোম (Rome) (ইতালি), আমস্টারডাম (Amsterdam) (নেদারল্যান্ডস), বুখারেস্ট (Bucharest) (রোমানিয়া), বুদাপেস্ট (Budapest) (হাঙ্গেরি), কোপেনহেগেন (Copenhagen) (ডেনমার্ক), গ্লাসগো (Glasgow) (স্কটল্যান্ড), সেভিয়া (Seville) (স্পেন)। দুটি সেমিফাইনাল ও ফাইনাল আয়োজিত হবে লন্ডনের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে।

মোট কতগুলো দেশ অংশ নিয়েছে এবারের ইউরোতে

মোট ২৪টি দেশকে নিয়ে হবে এবারের টুর্নামেন্ট।

কী পদ্ধতিতে হবে এবারের টুর্নামেন্ট

প্রথমে ৬টি গ্রুপে ভাগ করে খেলবে ২৪টি দেশ। প্রতিটি গ্রুপে আছে ৪টি করে দেশ। ৬টি গ্রুপের শীর্ষে, ও দু নম্বরে থাকা দেশ সরাসরি প্রি কোয়ার্টার ফাইনালে উঠবে। প্রি কোয়ার্টার ফাইনালের বাকি চারটি দল ঠিক হবে ৬টি গ্রুপের সেরা তিনে থাকা চারটি দেশ। প্রি কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে টুর্নামেন্ট নক আউট হয়ে যাবে। মানে হারলেই বিদায়। প্রি কোয়ার্টার ফাইনাল, কোয়ার্টার ফাইনাল, সেমিফাইনালে জিতলে ফাইনালে খেতাবি লড়াইয়ে খেলার জন্য মিলবে সুযোগ।

কোন গ্রুপে কোন কোন দল আছে?

গ্রুপ এ: তুর্কি, ইতালি, ওয়েলস, সুইজারল্যান্ড

গ্রুপ বি: ডেনমার্ক, ফিনল্যান্ড, বেলজিয়াম, রাশিয়া

গ্রুপ সি: নেদারল্যান্ডস, ইউক্রেন, অস্ট্রিয়া, নর্থ ম্যাসেডোনিয়া

গ্রুপ ডি: ইংল্যান্ড, ক্রোয়েশিয়া, স্কটল্যান্ড, চেক প্রজাতন্ত্র

গ্রুপ ই: স্পেন, সুইডেন, পোল্যান্ড, স্লোভাকিয়া

গ্রুপ এফ: হাঙ্গেরি, পর্তুগাল, ফ্রান্স, জার্মানি

গ্রুপ অফ ডেথ কোনটাকে বলা হচ্ছে

গ্রুপ ডি বেশ কঠিন। ইংল্যান্ড, ক্রোয়েশিয়াকে মোটেও সহজে ছেড়ে দেবে না স্কটল্যান্ড, চেক প্রজাতন্ত্র। তবে এই গ্রুপের থেকে কঠিন হল সবার শেষে গ্রুপ এফ। বিশ্ব ফুটবলের এই মুহূর্তে শক্তিশালী দেশ আছে এই গ্রুপে। বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স, গতবারের ইউরো চ্যাম্পিয়ন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর পর্তুগাল, বিশ্ব ফুটবলের লড়াকু নাম জার্মানি। এমনকী এই গ্রুপের চতুর্থ দল হাঙ্গেরিও একেবারে হেলাফেলার প্রতিপক্ষ নয়। গ্রুপের সব কটা ম্যাচ 'মাস্ট ওয়াচ'।

দর্শকরা স্টেডিয়ামের ভিতর ঢুকে ম্যাচ দেখতে পারবেন কী

করোনার ঢেউ সামলে ওঠায় আয়োজক ১১টি শহরেই স্টেডিয়ামে দর্শকদের ঢুকতে দেওয়ার অনুমতি মিলেছে। তবে পুরো স্টেডিয়াম ভর্তি নয়, ৫০ শতাংশ স্টেডিয়াম ভরা থাকবে। একটা করে সিট ছেড়ে ছেড়ে বসার ব্যবস্থা থাকবে। তবে বুদাপেস্টে ভরা স্টেডিয়ামেই খেলা হবে। আমস্টারডাম, বুখারেস্ট, কোপেনহেগেন, গ্লাসগো, রোম এবং সেভিয়ায় ২৫-৪৫ শতাংশ দর্শক থাকবেন স্টেডিয়ামে। লন্ডনে ২৫ শতাংশ আর মিউনিখে ২২ শতাংশ দর্শক থাকবে স্টেডিয়ামে।

করোনার কারণে কোন কোন শহর টুর্নামেন্ট আয়োজন থেকে সরে দাঁড়িয়েছে?

আয়ারল্যান্ডের ডুবলিন এবং স্পেনের বিলাবাও শহর টুর্নামেন্ট আয়োজন থেকে সরে দাঁড়ায়। বিলাবাও পরিবর্তে স্পেনের অপর শহর সেভিয়া আয়োজনে এগিয়ে আসে। আর ডুবলিনের ম্যাচগুলির আয়োজনের দায়িত্ব দেওয়া হয় লন্ডন এবং সেন্ট- পিটার্সবার্গকে।

টুর্নামেন্ট শুরুর আগে কোনও ফুটবলারের করোনা ধরা পড়েছে কী?

রবিবার স্পেনের অধিনায়ক সার্জিও বুস্কেতসের করোনা ধরা পড়ে। পাশাপাশি নেদারল্যান্ডসের গোলকিপার জেসপারসিয়েলসনেরও করোনা রিপোর্ট পজেটিভ আসায় তাঁকে স্কোয়াডের বাইরে রাখা হয়। এই আশঙ্কার কারণেই এবার উয়েফা দলগুলিকে ২৬জন ফুটবলারকে নিয়ে যাওয়ার অনুমতি দিয়েছে।

টুর্নামেন্টের ফেভারিট কে

ফ্রান্স এবার ধারেভারে এগিয়ে। জার্মানি, স্পেন, পর্তুগালও হিসেবে রয়েছে। ইংল্যান্ড নিজেদের শক্তি বাড়িয়ে নামছে বলে দাবি করেছে। বিশ্বকাপের রানার্স ক্রোয়েশিয়া আন্ডারডগ হিসেবে নামছে। তবে ফেভারিটরা বেশিরভাগ সময়ই ইউরোয় কাপ

জেতে না।

ভারতে কোন টিভি চ্যানেলে সরাসরি দেখা যাবে এই টুর্নামেন্ট?

সোনি স্পোর্টস নেটওয়ার্কের বিভিন্ন চ্যানেলে দেখা যাবে ম্যাচ। সোনি টেন টু, টেন থ্রি এসডি ও এইচডি-তে দেখা যাবে টুর্নামেন্টের সব ম্যাচ।

অনলাইনে কীভাবে দেখা যাবে এই টুর্নামেন্ট

সোনি লিভের মাধ্যমে সরাসরি দেখা যাবে ম্যাচ।