Tokyo Olympics 2020: নীরজ চোপড়ার সোনার থ্রোয়ে টোকিওতে, অলিম্পিক অ্য়াথলেটিক্সে ভারতের প্রথম সোনা, অলিম্পিকে সাফল্যের সপ্তম স্বর্গে ভারত

টোকিও, ৭ অগাস্ট: দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান। স্বাধীন ভারতে অলিম্পিকে অবশেষে এল অ্য়াথলেটিক্স থেকে পদক। তাও  আবার সোনা। জ্যাভলিন থ্রোয়ে (Javelin Throw) হরিয়ানার ছেলে নীরজ চোপড়া (Neeraj Chopra)-র অনবদ্য প্রচেষ্টায় টোকিও অলিম্পিকে সোনা জিতল ভারত।  ফাইনালে ৮৭.৫৮ মিটার জ্যাভলিন ছুঁড়ে সোনা জিতলেন নীরজ চোপড়া। চেক প্রজাতন্ত্রের দুই জ্যাভলিন থ্রোয়ার জিতলেন রুপো ও ব্রোঞ্জ। নীরজের চেয়েও ফাইনালে যাকে এগিয়ে রাখছিলেন বিশেষজ্ঞরা সেই জার্মানির জুলিয়ান ওয়েবার প্রথম তিনেই থাকতে পারেলন না।

ফাইনালে প্রথম থ্রোয়ে নিরজ ছুঁড়েছিলেন ৮৭.০৩ মিটার, দ্বিতীয় প্রচেষ্টায় সেটা আরও উন্নত করে ৮৭.৫৮ মিটার ছোঁড়েন। অলিম্পিক জ্যাভলিনে ৬টা থ্রোয়ে সেরা থ্রো-টাকে বিবেচ্য করা হয়। নীরজের মত কেউই ৮৭-র গণ্ডি ছুঁতে পারেননি।

২০০৮ বেজিং অলিম্পিকের পর ১৩ বছর পর অবশেষে অলিম্পিকে এলে সোনা। ২০০৮ বেজিং গেমসে শ্যুটিংয়ে সোনা জিতেছিলেন অভিনব বিন্দ্রা।

নীরজের সোনার থ্রোয়ে স্বাধীন ভারতে ব্যক্তিগত বিভাগে অলিম্পিকে দ্বিতীয় সোনা জিতল ভারত। টোকিও অলিম্পিকে ভারত ১টি সোনা, দুটি রুপো, ৪টি ব্রোঞ্জ জিতল। ২০১৯ সালে মারাত্মক চোট থেকে ফিরে এসে নীরজের এই  সোনা জয় হার মানাবে রূপকথার গল্পকেও।

কোয়ালিফেকেশন রাউন্ডের চেয়েও বেশি দূরত্ব পাড় করে সোনা জিতলেন নীরজ। এদিন টোকিওয়ে ফাইনালে তাঁর ধারেকাছে আসতে পারলেন না কোনও প্রতিপক্ষ। পাকিস্তানের জ্যাভলিন থ্রোয়ার আর্শাদ নাদিম ছোঁড়েন ৮৪.৬২ মিটার। নাদিম পঞ্চম স্থানে শেষ করেন। ৮৬.৬৭ মিটার ছুঁড়ে দ্বিতীয় হন চেক প্রজাতন্ত্রের জাকুব ভাদলিচ (৮৬.৬৭ মিটার), ব্রোঞ্জ পান চেক প্রজাতন্ত্রের ভিতেসলাভ ভেসেলে (৮৫.৪৪ মিটার)।

লন্ডন অলিম্পিকের ভারতীয় ক্রীড়াবিদদের মহাসাফল্যকে ছাড়িয়ে গেল টোকিও গেমস। টোকিও গেমসের ১৫ তম দিন কুস্তিতে ব্রোঞ্জ পদক জিতে চলতি অলিম্পিকে ভারতের ষষ্ঠ পদকটি আনেন তারকা কুস্তিগীর বজরং পুনিয়া। সেমিফাইনালে প্রতিপক্ষকে ৯-০ হারিয়ে বজরঙ কুস্তিতে টোকিও অলিম্পিকে দেশের দ্বিতীয় পদকটি আনলেন।

বজরং পদক জিততেই পদক সংখ্যার বিচারে অলিম্পিকে ভারতের সেরা পারফরম্যান্স করা লন্ডন গেমসের সাফল্যকে ছুঁয়ে ফেলছিল ভারত। নীরজের সোনায় লন্ডন গেমসের সাফল্যকে ছাপিয়ে গেল টোকিও।  লন্ডন অলিম্পিকে ভারত জিতেছিল মোট ৬টি পদক (২টি রুপো, ৪টি ব্রোঞ্জ)। টোকিওতে ভারত এল ৭টি পদক (১টি সোনা,২টি রুপো, ৪টি ব্রোঞ্জ)