Mohun Bagan vs East Bengal: মরসুমের প্রথম ডার্বিতে কোন গোলই হল না, রবিবার যুবভারতীর ইলিশ-চিংড়ির ফুটবল পাত একেবারে খালি
নিষ্ফলা ডার্বি। (Photo Credits: Twitter)

কলকাতা, ১ সেপ্টেম্বর: CFL 2019: Mohun Bagan, East Bengal play out goalless draw- মরসুমের প্রথম ডার্বি নিষ্ফলা তো বটেই, সঙ্গে কোনও গোলও হল না। রবিবার সল্টলেক স্টেডিয়ামে কলকাতা লিগের বড় ম্যাচ সেভাবে জমল না। মোহনবাগান-ইস্টবেঙ্গল ম্যাচ গোলশূন্য অবস্থায় শেষ হল।  দু দলের সমর্থকদের ভিড়ে যতটা উত্তপ্ত ছিল গ্যালারি, দু দলের খেলায় মাঠ ছিল ততটাই ঠান্ডা। মোহনবাগান-ইস্টবেঙ্গল- দু দলই গোল করার সুযোগ পেয়েছিল, তবে ভেদশক্তির অভাবে ভোগায় হল হয়নি। দু দলের স্ট্রাইকাররাই হতাশ করেন। আক্রমণের বহরে মোহনবাগান কিছুটা এগিয়ে থাকলেও লাভ হল  না। ৬৫ হাজার ভরা যুবভারতী একেবারে গোলে খালি।

গত মরশুমে দুটি ডার্বিতেই জিতেছিলেন ইস্টবেঙ্গল কোচ আলেজান্দ্রো। এবার তিনি অপরাজিত থাকলেও লাল হলুদ জনতা হতাশ। শতবর্ষের উৎসব চলা লাল হলুদে ডার্বি জিতলে আলাদা মাত্রা আসতে পারত। সেসব কিছু হল না। আরও পড়ুন-টেস্টে তৃতীয় ভারতীয় হিসেবে হ্যাটট্রিক বুমরা-র

আজ ডার্বিতে দুই প্রধানের কোচ ছিলেন স্প্যানিশ। অনেক স্প্যানিশ ফুটবলারও ছিলেন। তাই মনে হয়েছিল আজকের কলকাতা ক্লাসিকো-র মান বেশ ভাল হতে পারে। কিন্তু দু একটা ক্ষেত্র ছাড়া দু দলের খেলাই বিশেষ ভাল হল না। দু দলই মরসুমের প্রথম ডার্বি  সাবধানতার সঙ্গে খেলল। দুই স্পেনীয় কোচের মগজাস্ত্রের লড়াইয়ে রবিবারের যুবভারতী জমল না। আজ ডার্বিতে ইস্টবেঙ্গল কোচ আলেয়ান্দ্রো মেনেন্দেজ দলে বেশ কিছু বড় পরিবর্তন এনেছিলেন।

হাইমে স্যান্টোস কোলাডোকে প্রথম একাদশেই রাখেননি তিনি। উল্টে মার্কোস দে লা এসপাড়াকে শুরু থেকে ব্যবহার করছেন আলেয়ান্দ্রো। মোহনবাগানের কোচ কিবু ভিকুনা আবার সালভা চামরাকে খেলালেন না। দল গঠনে দুই প্রধানের দুই কোচ চমক দেখালেও, খেলায় চমক দেখা গেল না।

দু দলের প্রথম একাদশ

ইস্টবেঙ্গল: লালথুমাওয়াইয়া রালতে, কমলপ্রীত সিং, মার্তি ক্রেসপি, মেহতাব সিং, অভিষেক, কাসিম আদিরা, পিন্টু মাহাতো, লালরিনডিকা রালতে (অধিনায়ক), ব্র্যান্ডন, রোনাল্ডো ওলিভিয়েরা, মার্কোস এস্পাদে মার্তিন

মোহনবাগান: দেবজিৎ মজুমদার, ফ্রান মোরান্তে, গুরজিন্দর কুমার (অধিনায়ক), চুলোভা, নংদাম্বা নাওরেম, আশুতোষ মেহতা, সুরাবুদ্দিন মল্লিক, জোসেবা বেইতিয়া, ভিপি সুহাইর, ফ্রান্সিকো জাভিয়ার গঞ্জালেস, শেখ সাহিল।