জন্মদিনের বিতর্কিত শুভেচ্ছা জানানো হার্দিক পান্ডিয়াকে চালাকির সঙ্গে জবাব দিলেন জাহির খান
হার্দিক পান্ডিয়া। (Photo Credits: File Image)

সোমবার, ৭ অক্টোবর ছিল জাহির খান (Zaheer Khan)-এর ৪১ তম জন্মদিন। ভারতীয় ক্রিকেটের ইতিহাসে অন্যতম সেরা পেসার জাহিরকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানায় ক্রিকেটমহল থেকে শুরু করে নেটিজেনরা। কিন্তু জ্য়াককে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে গিয়ে বিতর্ক ডেকে এনেছিলেন ভারতের তারকা অলরাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়া। জাহির হার্দিককে সেই বিতর্কিত শুভেচ্ছাটা বেশ সুন্দরভাবে ফিরিয়ে দিলেন।

জাহিরকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে গিয়ে হার্দিক একটা ভিডিও পোস্ট করে কার্যত কটাক্ষ করে বসেছিলেন। ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছিল বাঁ হাতি পেসার জাহিরকে অনায়াসে কীভাবে ছক্কা হাঁকাচ্ছেন হার্দিক। জন্মদিনের শুভেচ্ছায় ছক্কা হাঁকানোর ভিডিও কেন তা নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন তোলেন। দেশের হয়ে দীর্ঘ ১৩ বছর ক্রিকেট খেলে জাহির যে সাফল্য পেয়েছেন, তা বিশ্বের খুব কম ক্রিকেটারই পান। এত ঈশ্বর্ণীয় সাফল্য থাকা একজন ক্রিকেটারের জন্মদিনে হার্দিক কেন বেছে বেছে একটা ছক্কা হাঁকানো ডেলিভারির ভিডিও দিলেন তা নিয়ে ওঠে প্রশ্ন। কারও কারও কাছে এটা আবার হার্দিকের ঔদ্ধত্য বলে মনে হয়েছে। অনেকে আবার হার্দিককে আক্রমণ করে বলেছিলেন, অল্প সাফল্য পেলে এমনই নির্বোধ আচরণ করে মানুষ।

জাহির হার্দিকের সেই বিতর্কিত চর্চিত শুভেচ্ছা জবাব দিয়ে বললেন, '' ধন্যবাদ হার্দিক। আমার ব্যাটিং স্কিল কখনই তোমার মত অত ভাল হবে না। কিন্তু এরপরের ডেলেভারিটা যেটা আমি তোমায় করেছিলাম সেটার মত এবার আমা জন্মদিনটা কাটল।''আরও পড়ুন-জাহির খানকে নিয়ে এই পাঁচটা তথ্য মনে আছে!

Hahahaha....thank you for the wishes @hardikpandya7 my batting skills can never be as good as yours but the birthday was as good as the next delivery you faced from me in this match 😉 https://t.co/anhQdrUBN7

জাহিরের জবাব থেকেই স্পষ্ট হার্দিক যতই তাঁকে কটাক্ষের সুরে শুভেচ্ছা জানান, জ্যাক কিন্তু তাঁর চরিত্রের মতই শান্ত-সুন্দর জবাব দিলেন। জাহির তাঁর ব্যাটিং স্কিলের কথা বললেন। জাহির কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সেভাবে ব্যাটিং স্কিল দেখানোর সুযোগ পাননি। কিন্তু ১১ নম্বরে নেমেও তাঁর বেশ কিছু চমকপ্রদ ইনিংস আছে। ব্যাটের হাতটা নেহাত মন্দ ছিল না জাহির খানের। একবার দশম উইকেটে সচিন তেন্ডুলকর-জাহির খান জুটি ১৩৩ রানের পার্টনারশিপ করেছিলেন। জাহির সেই ম্য়াচে করেছিলেন ৭৫ রান। সেই সময় এগারো নম্বরে ব্য়াট করতে নামা কোনও ব্যাটসম্যান হিসাবে সেটাই ছিল সর্বোচ্চ রান।