Marais Erasmus to Retire: নিউজিল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া সিরিজের শেষ আম্পায়ারিং থেকে বিদায় মারাইস ইরাসমাসের
Marais Erasmus (Photo Credit: ICC/ X)

নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার চলমান টেস্ট সিরিজ শেষে দক্ষিণ আফ্রিকার অভিজ্ঞ আম্পায়ার মারাইস ইরাসমাস (Marais Erasmus) তার আন্তর্জাতিক আম্পায়ারিং কেরিয়ারকে বিদায় জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। বোল্যান্ড ক্রিকেট দলের হয়ে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটার থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আম্পায়ারিংয়ের অন্যতম সম্মানিত ব্যক্তিত্ব হয়ে ওঠা ইরাসমাসের যাত্রা অসাধারণ। ২০০৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে ওয়ান্ডারার্সে দক্ষিণ আফ্রিকা ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার টি-২০আইয়ে অভিষেক দিয়ে আন্তর্জাতিক আম্পারিংয়ে শুরু হওয়া তার কেরিয়ার দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে চলে, এই সময়ে তিনি পুরুষদের হয়ে ৮০টি টেস্ট, ১২৪ ওয়ানডে এবং ৪৩টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ পরিচালনা করেছেন। বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) ওয়েলিংটন থেকে Cricbuzz-কে ইরাসমাস বলেন, 'আমি সুযোগ-সুবিধা ও ভ্রমণ মিস করব। কিন্তু আমি দূরে থাকতে এবং আমার কমফোর্ট জোনের বাইরে অনেক কাটিয়েছি..আমি মনে করি জীবন আরও বিরক্তিকর হচ্ছে।' NZ vs AUS 1st Test Live Streaming: নিউজিল্যান্ড বনাম অস্ট্রেলিয়া, প্রথম টেস্ট; সরাসরি দেখবেন যেখানে

ক্রিকেটে ইরাসমাসের অবদান শুধু মাঠেই সীমাবদ্ধ ছিল না। মাঠের বাইরে আসন্ন আম্পায়ারদের পরামর্শদাতা এবং অবসরের পরে দক্ষিণ আফ্রিকার ঘরোয়া ক্রিকেটে আম্পায়ারিংয়ের সিদ্ধান্তের মাধ্যমে নিজেকে ব্যস্ত রাখতেন। তিনবার আইসিসির বর্ষসেরা আম্পায়ার হিসেবে মর্যাদাপূর্ণ ডেভিড শেফার্ড ট্রফি জয় তার অসাধারণ দক্ষতা ও ন্যায়পরায়ণতার প্রমাণ। ইরাসমাসের মতে, তিনি অবসরের সিদ্ধান্ত নেন আগের বছরের অক্টোবরে, এখনও রয়েছেন শুধু তার চুক্তি শেষ করার জন্য। নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার ওয়েলিংটন টেস্টে তার সর্বশেষ আন্তর্জাতিক কেরিয়ারের সমাপ্তি ঘটাবে। ইরাসমাসের বিদায়ের ফলে দক্ষিণ আফ্রিকার একমাত্র আম্পায়ার হিসেবে আদ্রিয়ান হোল্ডস্টক এলিট প্যানেলে জায়গা করে নিয়েছেন। তবে ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা এবং ঘরোয়া ক্রিকেটে আম্পায়ারিংয়ের মাধ্যমে ক্রিকেটে অবদান রাখার পরিকল্পনা করছেন ইরাসমাস।