Imran Khan to Not Attend CWC Final: মেলেনি জামিন, বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়কদের 'প্যারেড অব চ্যাম্পিয়ন্স'-এ নেই ইমরান খান
Imran Khan (Photo Credit: X)

রবিবার আমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে ভারত-অস্ট্রেলিয়া একদিনের বিশ্বকাপ ২০২৩-এর ফাইনাল উপলক্ষে ১৯৭৫ থেকে ২০১৯-এর বিশ্বকাপজয়ী সব অধিনায়ককে সংবর্ধনা দেবে আয়োজক বিসিসিআই। অধিনায়করা 'প্যারেড অব চ্যাম্পিয়ন্স'-এ অংশ নেবেন এবং তাঁদের সাফল্যের স্বীকৃতি দিতে বিশেষ ব্লেজারও উপহার দেওয়া হবে। বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়কদের মধ্যে রয়েছেন ক্লাইভ লয়েড (১৯৭৫, ১৯৭৯), [ওয়েস্ট ইন্ডিজ], কপিল দেব (১৯৮৩), [ভারত], অ্যালান বর্ডার (১৯৮৭), [অস্ট্রেলিয়া], অর্জুন রণতুঙ্গা (১৯৯৬), [শ্রীলঙ্কা], স্টিভ ওয়া (১৯৯৯), [অস্ট্রেলিয়া], রিকি পন্টিং (২০০৩,২০০৭) [অস্ট্রেলিয়া], এমএস ধোনি (২০১১), [ভারত], মাইকেল ক্লার্ক (২০১৫), [অস্ট্রেলিয়া] এবং ইয়ন মর্গ্যান (২০১৯), [ইংল্যান্ড]। তবে ১৯৯২ সালে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে ফাইনালে পাকিস্তানকে বিশ্বকাপ জেতানো ইমরান খান এই অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত থাকবেন। আইসিসি শেষ দিনের সূচির পোস্টারে খানকে প্রদর্শন করেনি। ICC ODI World Cup 2023 Final Ceremony: এয়ার শো থেকে শুরু করে মিউজিক ইভেন্ট, জেনে নিন বিশ্বকাপ ফাইনালে আমেদাবাদে আইসিসির চার পর্বের বিদায় অনুষ্ঠান

ইমরান খান কেন কারাবাসে?

৭১ বছর বয়সী ইমরান খান যিনি ২০১৮ সালের আগস্ট থেকে ২০২২ সালের এপ্রিল পর্যন্ত পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন, গত ৫ আগস্ট প্রথম গ্রেপ্তার হন। অবৈধভাবে রাষ্ট্রীয় উপহার বিক্রির দায়ে আদালত তাকে দোষী সাব্যস্ত করলে তাকে তিন বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এই ঘটনা তোষাখানা দুর্নীতি মামলা নামে বহুল পরিচিত। গ্রেপ্তারের পর আদালত তাকে পাঁচ বছরের জন্য রাজনীতি থেকে অযোগ্য ঘোষণা করেন। গত ২৯ আগস্ট ইসলামাবাদ হাইকোর্ট তাকে জামিনে মুক্তি দেয়। একই দিনে তাকে আবার গ্রেফতার করা হয়। আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের ষড়যন্ত্রের কারণে তার সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করা হয়েছে বলে সাইফারের বিষয়বস্তুর অপব্যবহারের অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তবে ওয়াশিংটনের পক্ষ থেকে এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। সাইফার মামলায় ইসলামাবাদ হাইকোর্টের বিচারপতি মিয়াঙ্গুল হাসান আওরঙ্গজেব ও বিচারপতি সামান রাফাত ইমতিয়াজের বেঞ্চ ২০ নভেম্বর পর্যন্ত তাঁর কারাবাসের মেয়াদ বাড়িয়েছে। অনাস্থা ভোটের মাধ্যমে ইমরান খানকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার পর থেকে তাঁর বিপক্ষে দেড়শোর বেশি মামলা দায়ের করা হয়েছে।