TMC Worker Slaps Man: দিদির দূতের সামনে অভিযোগ জানানোয় যুবককে সাপটে চড় তৃণমূল কর্মীর, ঘটনাস্থলের ভিডিয়ো
Photo Credits: Twitter

ইছাপুর: রাজ্যে শুরু হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসের নতুন কর্মসূচী। পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে গিয়ে সাধারণ মানুষের অভাব-অভিযোগ শুনছেন দিদির দূতরা। শনিবার দিদির সুরক্ষা কবচ (Didir Suraksha Kavach) নামে সেই কর্মসূচীর অঙ্গ হিসেবে উত্তর ২৪ পরগনার (North 24 Parganas) জেলার ইছাপুর-নীলগঞ্জ (Ichapur-Nilgang) এলাকায় গেছিলেন রাজ্যের খাদ্য ও সরবরাহ মন্ত্রী রথীন ঘোষ (West Bengal Food and Supplies Minister Rathin Ghosh)।

তাঁকে হাতের কাছে পেয়ে এলাকার কিছু অসুবিধার কথা জানাচ্ছিলেন স্থানীয় বাসিন্দা সাগর বিশ্বাস। সেই সময় তাঁকে সবার সামনে সজোরে গালে চড় (Slap) মারেন রথীন ঘোষের সঙ্গে থাকা এক তৃণমূল কর্মী। আর সাগরকে দূরে ঠেলে সরিয়ে দেয় আরও কয়েকজন। পরে এই বিষয়ের জন্য ওই যুবকের কাছে ক্ষমা চাইতে দেখা যায় খাদ্যমন্ত্রীকে। যদিও সূত্রের খবর, এই ঘটনার বিষয়ে সাংবাদিকদের সামনে মুখ খুলতে বারণ করা হয়েছে সাগর বিশ্বাসকে।

পরে ঘটনাস্থলে দাঁড়িয়ে সাংবাদিকদের সামনে রথীন ঘোষ বলেন, "বিষয়টি ঠিক কী হয়েছে আমি্ সত্যিই দেখিনি। কিন্তু, এই ধরনের যদি কিছু ঘটে থাকে তাহলে তা খুবই দুর্ভাগ্যজনক। এটা হওয়ার কোনও দরকার ছিল না। আমি ক্ষমা চেয়েছি।"

কিন্তু, ততক্ষণে আশেপাশে থাকা অনেকেই তুলে ফেলেছেন চড় মারার ঘটনার ভিডিয়ো। পরে সেটি সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হতেই শুরু হয়ে যায় রাজনৈতিক শোরগোল। রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসকে একযোগ আক্রমণ করে বিরোধী বিজেপি (BJP) ও সিপিএম (CPM)।

বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা বলেন, "মানুষকে যদি অসুবিধার কথা বলতে গিয়ে শাসক দলের কর্মীর কাছে হেনস্থার শিকারই হতে হয়, তাহলে এমন ধরনের কর্মসূচীর মানে কী!"

সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন, "সাধারণ মানুষের সুরক্ষা ও নিরাপত্তায় বিশ্বাসই করে না তৃণমূল। চড় মারার ঘটনা সেটাই প্রমাণ করে।"

দেখুন ভিডিয়ো: