Viral: বিছানা থেকে ইঁদুর তাড়াতে সাহায্য করেনি, স্বামীর পুরুষাঙ্গে কামড় স্ত্রীর
প্রতীকী ছবি Unsplash (Image used for representational purposes only)

বন্ধুদের সঙ্গে ঘোরাঘুরির পর মদ্যপান সেরে মাঝরাতে বাড়ি ফিরে স্ত্রী দেখেন তাঁর বিছানায় ঘুরছে ইঁদুর। দেখেই মাথা গরম হয়ে গিয়েছিল। স্বামীকে তৎক্ষণাত ওই গৃহবধূ বলেন, যেন ইঁদুরটাকে সরিয়ে দেওয়া হয়। স্ত্রীর নতুন ফরমায়েশে পাত্তা দেননি স্বামী। আর তাতেই ক্ষিপ্ত স্ত্রী দাঁত বসিয়ে দিলেন স্বামীর পুরুষাঙ্গে। এমন ঘটনায় তো আর চিংকার করেন কান্নাকাটি সম্ভব নয়, আয়নার সামনে দাঁড়িয়েই তাই চোখের জল ফেলতে হল বেচারা স্বামীকে। আক্রান্ত ব্যক্তি হলেন আব্রাহাম মুসন্দা(৫২)। আর গৃহবধূর নাম মুকুপা(৪০)। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে জাম্বিয়ার কিটউই এলাকায়। ওই শহরের বসবাস করেন দম্পতি। দুজনের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে গলেও তাঁরা একই ছাদের তলায় থাকতেন।

সেদিন রাতে বন্ধুদের সঙ্গে পার্টি করে পেরার পর বিছানায় ইঁদুর দেখে মুকুপা রেগে যান। তিনি যখন ইঁদুর তাড়াতে কালঘাম ছোটাচ্ছেন তখন মুসন্দা না দেখার ভান করে বসে আছেন। এই আচরণ সহ্য হয়নি স্ত্রীর, তাই স্বামীর পুরুষাঙ্গে দাঁত বসিয়ে দেন তিনি। এদিকে কামড়ের ঘায়ে গুরুতর আহত মুসন্দাকে তড়িঘড়ি কিটউই টিচিং হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তবে এমন ঘটনা বিশ্বের কোথাও নতুন নয়। তামিলনাড়ুর থুরাইমুলাই গ্রামেই এমন ঘটনা ঘটেছিল। প্রেমিকের সঙ্গে স্ত্রীকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলেন স্বামী। এরপর প্রায়ই সেই খবর প্রকাশ করে দেওয়ার হুমকি দিতেন। একদিন রেগেমেগে স্বামীর পুরুষাঙ্গ কামড়ে দেয় স্ত্রী। তারপর প্রেমিকের সঙ্গে উধাও হয়ে যায়। পরে পুলিশ ওই গৃহবধূকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। দ্বিতীয় স্ত্রীর সহ্গে সময় কাটাচ্ছেন স্বামী, রেগে গিয়ে যুবকের পুরুষাঙ্গে কোপ দিয়েছিল স্ত্রী। তারপর সে রক্তাক্তি কাণ্ড। ঘটনাটি উত্তরপ্রদেশের মুজাফ্ফরনগরের। আরও পড়ুন-Gujarat Shocker: লকডাউনের জেরে পাহাড় প্রমাণ ঋণের বোঝা, মানসিক চাপে আত্মঘাতী একই পরিবারে ৫ জন

কখনওখনও আত্মরক্ষার্থেও মহিলারা এই কাণ্ড ঘটিয়ে থাকেন। কেকমাস আগে মার্কিন মুলুকের সাউথ ক্যারোলিনায় শ্লীলতাহানির ঘটনা ঘটে। তরুণীকে ছুরি ধরে শাসিয়ে শ্লীলতাহানির অভিযোগ ওঠে। সুযোগ বুঝে অভিযুক্তের পুরুষাঙ্গে কামড় বসিয়ে দেন নির্যাতিতা। দাম্পত্য কলহের সময় স্ত্রীর বুকে কামড় দিয়েছিল স্বামী প্রতিশোধ স্পৃহায় স্বামীর পুরুষাঙ্গ কামড়ে দেয় স্ত্রী। এই ঘটনাটি নাইজেরিয়ার। এই হিংসাত্মক ঝগড়ের পরিণতিতে রক্তাক্ত স্বামীকে বেশ কয়েকদিন হাসপাতালেই কাটাতে হয়েছে।