JP Nadda's Convoy Attacked: জেপি নাড্ডার কনভয়ে হামলা অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে নিচ্ছে কেন্দ্র, জানালেন অমিত শাহ
অমিত শাহ

নতুন দিল্লি, ১০ ডিসেম্বর: জেপি নাড্ডার (JP Nadda) কনভয়ে হামলার ঘটনার কড়া নিন্দা করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Home Minister Amit Shah)। তিনি বলেন, "আজ বাংলায় জপি নাড্ডাজি-র ওপরে হওয়া আক্রমণ খুব নিন্দনীয়। যতই নিন্দা করা হয় ততই কম। কেন্দ্রীয় সরকার এই আক্রমণকে অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে নিচ্ছে। এই স্পনর্সড হিংসার জন্য বাংলার সরকারকে রাজ্যের শান্তিকামী মানুষদের জবাব দিতে হবে।" অমিত শাহ বলেন, "তৃণমূল শাসনের অধীনে বাংলা অত্যাচার, অরাজকতা ও অন্ধকারের যুগে গেছে। তৃণমূলের শাসনে যেভাবে রাজনৈতিক হিংসাকে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে পশ্চিমবঙ্গের অভ্যন্তরে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে চূড়ান্তভাবে আনা হয়েছে, গণতান্ত্রিক মূল্যবোধে বিশ্বাসী সকলের জন্য তা দুঃখজনক ও উদ্বেগজনক।"

কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমার বলেন, এ জাতীয় ঘটনা ক্রমশ বাড়ছে, এটি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে সুরক্ষা থাকা সত্ত্বেও বিজেপি-র সর্বভারতীয় সভাপতির কনভয়ে পাথর ছোড়া হচ্ছে। রাজ্য সরকার এটিকে অগ্রাহ্য করছে। আমরা এই হামলার নিন্দা করি। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযূষ গোয়েল বলেন, জেপি নাড্ডা, কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র ওপর আক্রমণ দুর্ভাগ্যজনক। পশ্চিমবঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা সম্পূর্ণ ভেঙে পড়েছে। আমরা আক্রমণকারী গুন্ডাদের বিরুদ্ধে কঠোরতম ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি করছি। আরও পড়ুন: JP Nadda's Convoy Attacked: 'রাজ্যে অরাজকতা, অসহিষ্ণুতা চলছে, মা দুর্গার আশীর্বাদে বেঁচে গেছি', কনভয়ে হামলা প্রসঙ্গে বললেন জেপি নাড্ডা

আজ ডায়মন্ডহারবার যাওয়ার পথেই বেশ কয়েকবার বাধার মুখে পড়েজেপি নাড্ডার কনভয়। গাড়ি লক্ষ্য করে চলে ইটবৃষ্টি। বুলেটপ্রুফ গাড়িতে থাকার কারণে নাড্ডার আঘাত লাগেনি। কৈলাস বিজয়বর্গীয় এবং রাহুল সিনহার গাড়ির কাচ ভেঙেছে ইটের ঘায়ে। ভাঙচুর চলেছে সংবাদ মাধ্যমের গাড়িতেও। জনরোষ থেকে রেহাই পায়নি একটি বেসরকারি বাস। হামলার খবর পেয়েই নিরাপত্তায়গাফিলতির অভিয়োগ এনে মুখ খুলেছেন দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, “রাজ্যে দলের সভাপতি জেপি নাড্ডার সফরের সময় নিরাপত্তার গাফিলতি হয়েছে। গতকালও তাঁর ইভেন্টের জায়গায় কোনও পুলিশ ছিল না। আমি গোটা ব্যাপারটি অমিত শাহ ও এখানকার প্রশাসনকে চিঠি লিখে জানিয়েছি।”

নাড্ডার কনভয়ে হামলার ঘটনায় সরকার ও পুলিশ প্রশাসনকে একহাত নিয়েছেন রাজ্যপাল। তিনি লেখেন, “পশ্চিমবঙ্গে অরজাকতা চলছে। আইনের শাসন নেই। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে শাসক দলের হার্মাদ ও রাজনৈতিক পুলিশ বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার কনভয়ে হামলা চালানো হল। চলল ইটবৃষ্টি। এর নেপথ্যে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের প্রচ্ছন্ন সমর্থন রয়েছে। এমন ঘটনার নিন্দা করছি। পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল হিসেবে এ আমার কাছে চরম লজ্জার।”