Uttar Pradesh: আনলকের শুরুতেই যোগী রাজ্যে ঘোষণা, কোনও জেলায় দৈনিক সংক্রমণ ৫০০ ছাড়ালেই হবে করোনা কার্ফু
লকডাউন (Photo Credits: IANS)

লখনউ, ২০ জুন: আনলকের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে উত্তরপ্রদেশে জুড়ে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ কিছুটা সামলে উঠে জীবনে ফিরতে আনলক প্রক্রিয়া শুরু করেছে যোগী আদিত্যনাথের সরকার। সোমবার থেকে রাজ্যে আনলক হতে চলার আগে শনিবার কড়া গাইডলাইন জারি করল যোগী প্রশাসন। যেখানে কোভিড প্রোটোকল মেনেই অফিস, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তবে সেই সঙ্গে এও বলা হয়েছে কোনও জেলায় দৈনিক করোনা সংক্রমণ পাঁচশো ছাড়ালেই সেখানে জারি হবে করোনা কার্ফু। উত্তরপ্রদেশে এখন দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ২৯৪-তে নেমে এসেছে। আরও পড়ুন: সরাসরি লকডাউন তুলে কেমন অবস্থা তেলেঙ্গানার, দেখুন

যোগী রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিডে মৃত্যু হয়েছে ৫১ জনের। পজেটিভিটি রেট নেমে এসেছে ০.১ শতাংশ। যা একটা সময় ৩ শতাংশ ছাড়িয়েছিল। যোগী প্রশাসনের দাবি, দেশে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক করোনা পরীক্ষা হয়েছে উত্তরপ্রদেশেই। প্রায় সাড়ে পাঁচ কোটি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ইউপি-তে। আর অনেক বেশি পরীক্ষা ও সচেতনার ফলেই দ্বিতীয় ঢেউ সামলে দেওয়া গেল দাবি যোগী প্রশাসনের।

উত্তর প্রদেশে সোমবার সকাল ৭টা-রাত পর্যন্ত দোকান, শপিং মল খোলার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। ৫০ শতাংশ আসন নিয়ে রেস্তোঁরা, মিষ্টির দোকান, ফাস্ট ফুড সেন্টারগুলিকেও খুলতে দেওয়া হচ্ছে। তবে উইকএন্ড লকডাউন জারি থাকবে।

এদিকে, ধাপেধাপে নয়, একেবারে সরাসরি লকডউন তুলে নিল তেলেঙ্গানা। রবিবার থেকেই তেলেঙ্গানায় মাস্ক, বা সামাজিক দূরত্বের মত দু-তিনটি নিয়ম ছাড়া একেবারেই স্বাভাবিক জীবনে ফিরল। সরাসরি লকডাউন তুলে নেওয়ার পর তেলেঙ্গানায় করোনা কেসের সংখ্যা কতটা বাড়ে তা নিয়ে গোটা দেশের আগ্রহ। কারণ দেশের কোনও রাজ্যেই একেবারে সরাসরি লকডাউন তুলে নেয়নি। প্রথম ঢেউ থেকে শিক্ষা নিয়ে দেশের সব রাজ্যই পর্যায়ক্রমে, ধাপেধাপে আনলক প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে।