Maharashtra Government Formation: রাত পোহালেই শপথ অনুষ্ঠান, উদ্ধব ঠাকরের মন্ত্রিসভায় কে কে ঠাঁই পাচ্ছেন, রইল তালিকা
শিবসেনা, এনসিপি ও কংগ্রেস নেতা (Photo Credit: IANS)

মুম্বই, ২৭ নভেম্বর: রাজ্যপাল ভগৎ সিং কোশিয়ারি এদিন ভাবি মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরেকে (Uddhav Thackeray) আমন্ত্রণ জানান। আগামিকাল শিবাজি পার্কি (Shivaji Park) মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন শিবসেনা প্রধান। উপমুখ্যমন্ত্রীর পদে দুই জোট শরিকের প্রতিনিধিরা থাকবেন। তবে তাঁরা কার এখনই ঠিক হয়নি। গোটা মন্ত্রিসভা কাল শপথ নেবে। শিবসেনা-এনসিপিও কংগ্রেস থেকে কারা মন্ত্রী হচ্ছেন এখন দেখে নেওয়ার পালা। তবে রাজস্ব ও স্বরাষ্ট্র দপ্তর কার হাত যায় সেটাই দেখার। স্পিকারের পদে নিজেদের প্রতিনিধি দেওয়ার জন্য কংগ্রেস প্রথম দিকে বায়না করলেও পরে তা থেকে সরে এসেছে। তার বদলে মহারাষ্ট্র বিধানসভায় কংগ্রেসের ৯ জনকে পূর্ণমন্ত্রী এবং ৪ জনকে রাষ্ট্রমন্ত্রী করা হবে বলে আপাতত স্থির হয়েছে।

শিবসেনার তরফে মন্ত্রিসভায় স্থান পাবেন, একনাথ শিণ্ডে (Eknath Shinde), দিবাকর রাওতে, সুভাষ দেশাই, আবদুল সাত্তার, রামদাস কদম, তানাজি সাওয়ান্ত, দীপক কেসকার, গুলাবরাও পাটিল প্রমুখ।

এনসিপির তরফে থাকছেন ধনঞ্জয় মুণ্ডে, জীতেন্দ্র আওয়াদ, জয়ন্ত পাটিল (Jayant Patil), ছাগন ভূজবল. হাসান মুশরিফ, অনিল দেশমুখ, দিলীপ ওয়ালসে পাটিল, মাকরন্দ পাটিল, রাজেশ টোপে প্রমুখ।

কংগ্রেসের তরফে অশোক চহ্বান, পৃথ্বিরাজ চহ্বান, বালাসাহেব থোরাট, বিজয় ওয়াদেতিওয়ার, কেসি পাদভি, বিশ্বজিৎ কদম, যশোমতি ঠাকুর, সাতেজ বান্টি পাটিল ও সুনীল কেদার প্রমুখ। আরও পড়ুন-Ajit Pawar: দলে ফিরেই দৃঢ় বন্ধনে আবদ্ধ অজিত পাওয়ার, মহারাষ্ট্র বিধানসভার বাইরে দাদাকে আঁকড়ে সুপ্রিয়া সুলে

এদিকে আগামিকাল শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে কাদের অতিথি হিসাবে আমন্ত্রণ জানানো হবে, তা নিয়ে চিন্তা-ভাবনা শুরু করে দিয়েছেন জোটের শীর্ষ নেতারা। তবে প্রাথমিক ভাবে জানানো হয়েছে, ওই তালিকা থেকে চূড়ান্ত ভাবে অতিথিদের নাম বাছাই করবেন এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ার। এ দিন দুপুরে তাঁর বাসভবনে গিয়ে দেখা করবেন কংগ্রেস নেতারা। তবে প্রাথমিক ভাবে স্থির হয়েছে, আগামিকালের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে আমন্ত্রণ জানানো হবে। আমন্ত্রণপত্র যাবে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবাল, অন্ধ্রপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এন চন্দ্রবাবু নায়ডু, রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌত এবং উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদবের নামেও। তবে সোনিয়া গান্ধী ও রাহুলের উপস্থিতি নিয়ে কেউই মুখ খোলেননি।