PM Narendra Modi: শিয়রে চমকাচ্ছে এনআরসি-সিএএ, অসমে খেলো ইন্ডিয়া ইয়ুথের উদ্বোধন এড়ালেন প্রধানমন্ত্রী
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Photo Credits: PTI)

গুয়াহাটি,  ৮ জানুয়ারি: চলতি বছরে ‘খেলো ইন্ডিয়া ইয়ুথ গেমস ২০২০’-র উদ্বোধন হতে চলেছে অসমে। আগামী ১০ জানুয়ারি এই উদ্বোধন উপলক্ষেই গুয়াহাটি যাওয়ার কথা ছিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির। তবে অসমের যা হালচাল তাতে তিনি সেখানে গেলে উদ্বোধন যেমন তেমন বিক্ষোভের মুখে পড়ে নাকাল হতে পারেন। কার্যত সেই ভয়েই প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের তরফে এই সফর বাতিল করা হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকে দরবার করলেও লাভ কিছু হয়নি। তাই প্রধানমন্ত্রীকে ছাড়াও এই দিন ‘খেলো ইন্ডিয়া ইয়ুথ গেমস ২০২০’-র উদ্বোধন করবেন সর্বানন্দ সোনোয়াল। অল অসম স্টুডেন্টস ইউনিয়ন(আসু) এই সফরে প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছিল। স্বভাবতই এইসব ভয়েই ওপথে হাঁটছেন না তিনি।

জানা গিয়েছে, ২০১৮ সাল থেকে শুরু হয়েছে খেলো ইন্ডিয়া গেমস। এ বার তা তিন বছরে পা দিল। ১০ জানুয়ারি থেকে ২২ জানুয়ারি পর্যন্ত ওই গেমস চলার কথা। কেন্দ্রীয় ক্রীড়া মন্ত্রক এবং অসম সরকারকে প্রধানমন্ত্রীর তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, তিনি ওই অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করতে পারবেন না। সেই জল্পনা আরও জোরাল হয়েছে অসমের বিজেপি মুখপাত্র দেওয়ান ধ্রুবজ্যোতি মারালের মন্তব্যে। সংবাদ সংস্থা আইএএনএস-কে জানিয়ে দিয়েছেন, ‘‘তাঁর সফর বাতিল হয়েছে। রাজ্য সরকার ওঁকে অনুরোধ জানিয়েছিল। কিন্তু, তিনি সময় দিতে পারবেন না।’’ বিনা কারণে ঝুঁকি নিতে নারাজ প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরও। যখন প্রধানমন্ত্রী যাচ্ছেন না তখন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীকে দিয়ে দুধের স্বাদ ঘোলে মেটাতে চেযেছিলেন সোনোয়াল, সেখানেও মেলেনি সাড়া। আসলে সিএএ ও এনআরসি- নিয়ে দুজনেই এমন প্রচার করে রেখেছেন যে অসমে প্রবেশ করলে তার সামান্যতম হলেও ফল ভুগতে হবে। তাই আগেভাগেই এই সাবধানতা অবলম্বন করা। আরও পড়ুন-BJP MP Swapan Dasgupta:'বিশ্বভারতীতে দাঙ্গাবাজের জায়গা নেই', স্লোগান তুলে বিজেপি সাংসদ স্বপন দাশগুপ্তকে ঘেরাও পড়ুয়াদের(দেখুন ভিডিও)

এদিকে অসমের সমস্ত চাত্র সংগঠনের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে কোনওভাবেই উত্তরপূর্বের কোথাও ঢুকতে দেওয়া হবে না। তবে এবার প্রথম নয় গত ডিসেম্বরেও ভারত-জাপান বার্ষিক শীর্ষসম্মেলন উপলক্ষে গুয়াহাটিতে আসার কথা ছিল তাঁর। সেবারও নানা অজুহাতে সেই অনুষ্ঠান এড়িয়েছেন নরেন্দ্র মোদি।