INX Media Case: পি চিদম্বরমের আগাম জামিনের আবেদন খারিজ, প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীকে ED-র গ্রেফতারে আর কোন বাধা রইল না
পি চিদম্বরম। (Photo Credits: ANI/File)

নয়া দিল্লি, ৫ সেপ্টেম্বর: INX মিডিয়া দুর্নীতি কেসে আরও চাপে পড়ে গেলেন  পি চিদম্বরম (P Chidambaram)। দেশের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী তথা অভিজ্ঞ এই কংগ্রেস নেতার আগাম জামিনের আবেদন খারিজ হয়ে গেল সুপ্রিম কোর্টে। ফলে এখন আর ইডি-র চিদম্বরমকে গ্রেফতার করতে কোনও বাধা থাকল না।  দিল্লি হাইকোর্ট তাঁর আগাম আবেদন খারিজ করার পর গ্রেফতারি রুখতে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন চিদাম্বরম। কিন্তু সুপ্রিম কোর্টে গিয়েও লাভ হল না চিদম্বরমের। তাঁর জামিনের আবেদন খারিজ করে শীর্ষ আদালত জানিয়ে দেয়, এমন সময় তাঁকে আগাম জামিন দিলে তদন্তে সাহায্য হবে না।

আর্থিক তছরুপের তদন্তগুলি বাকি মামলাগুলোর থেকে আলাদাভাবে মোকাবিলা করতে হবে  বলেও সুপ্রিম কোর্ট জানায়। ইডি (ED) এর আগে সুপ্রিম কোর্টকে জানিয়েছিল,  INX মিডিয়া মামলায় চিদাম্বরমকে হেফাজতে নিয়ে জেরা করলে তদন্তের সুবিধা হয তা না হলে বিজয় মালিয়া, নিরব মোদি, মেহুল চোস্কি-র মত কেসে তা প্রভাবিত হতে পারে। আরও পড়ুন-সাংবাদিকদের সামনে পার্টি কর্মীকে চড় মেরে বিতর্কে কর্নাটকের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দারামাইয়া (দেখুন ভাইরাল ভিডিও)

আর্থিক দুর্নীতি মামলার গ্রেপ্তারি থেকে রেহাই পেতে সুপ্রিম কোর্টে গিয়েছিলেন পি চিদম্বরম। গত বৃহস্পতিবার সেই মামলার শুনানির সময় ইডি-র আইনজীবী তুষার মেহতা নতুন তথ্য পেশ করেন। তিনি পি চিদম্বরমের মামলার সঙ্গে বিতর্কিত ইসলাম ধর্মপ্রচারক জাকির নায়েক ও মুম্বই হামলার মাস্টার মাইন্ড হাফিজ সইদের প্রসঙ্গও উত্থাপন করেছিলেন। তাঁর মতে পি চিদম্বরম ইডি-র হাতে গ্রেপ্তারি এড়াতে যে আবেদন সুপ্রিম কোর্টে করেছেন তার সঙ্গেই হাফিজ সইদ ও জাকির নায়েকের যোগসূত্র রয়েছে। আর বিষয়টির বিশদ তথ্য এখন ইডি-র হাতে এসেছে। যা গোপনে দেশের শীর্ষ আদালতকে জানাতে চায় এই কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা।

তাঁর বিরুদ্ধে গোপন তথ্য খামবন্দি করে সুপ্রিম কোর্টকে দিতে চান তুষার মেহতা (Tushar Mehta), একথা জানার পরই তীব্র বিরোধিতা করেছিলেন পি চিদম্বরম। এই সময় বাদি বিবাদি পক্ষের মধ্যে একপ্রস্থ কথা কাটাকাটিও হয়। তখন ইডির আইনজীবী বলেছিলেন যদি প্রবীণ কংগ্রেস নেতার আপত্তিকে আদালত গ্রাহ্য করে তবে তা ভুল নজির তৈরি করবে। এদিন বিচাপতি আর ভানুমতি ও এস বোপান্নার বে়ঞ্চে প্রসঙ্গটি তুলে আইনজীবী তুষার মেহতা বলেন, আদালত বার বার পি চিদম্বরমের (P Chidambaram) জামিনের আবেদন গ্রহণ করে আসলে বড় বড় অপরাধীকে ছাড় পাইয়ে দিচ্ছে। চিদম্বরমের এই আবেদন থেকেই সুযোগ পেয়ে যেতে পারে জাকির নায়েক, হাফিজ সইদের মতো অপরাধীরা।