Sharad Pawar: বিরোধীদের 'পাওয়ার কার্ড' খেলা হচ্ছে না, রাষ্ট্রপতি ভোটে বিরোধী প্রার্থী হতে মমতাদের প্রস্তাব ফেরালেন শরদ পাওয়ার
Sharad Powar (Photo Credits: IANS)

নতুন দিল্লি, ১৫ জুন:  আগামী মাসে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বিরোধীর পাওয়ার কার্ড খেলা হল না।আসন্ন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে বিরোধী দলগুলির জোট প্রার্থী করতে পারে শরদ পাওয়ারকে। এমন খবরটা বেশ কয়েকদিন ধরেই বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে শোনা যাচ্ছিল। রাষ্ট্রপতি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিরোধী দলগুলিকে এক জায়গায় আনার চেষ্টা করা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে গিয়েছিলেন শরদ পাওয়ারের সঙ্গে কথা বলতে। কিন্তু মমতাদের আবেদন ফেরালেন এনসিপি প্রধান। টুইটারে শরদ পাওয়ার জানালেন, দিল্লিতে বৈঠকে বিরোধী দলগুলি আমার নাম রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হিসেবে প্রস্তাব করেছিল, তার জন্য আমি তাদের ধন্যবাদ জানাই। কিন্তু আমি খুব সম্মানের সঙ্গে সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছি।"স্বাস্থ্যের কারণে আর জয় নিশ্চিত নয় বুঝেই শরদ পাওয়ার রাষ্ট্রপতি ভোটে লড়তে চাননি বলে মনে করা হচ্ছে।

তাঁর মানে দিল্লির কনস্টিটিউশন ক্লাবে চলা মমতার ডাকে বিরোধীদের ১৭ দলের বৈঠকে রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হিসেবে শরদ পাওয়ার ছাড়া অন্য নামগুলো নিয়ে আলোচনা হবে। আসন্ন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে সর্বসম্মত একজনকেই প্রার্থী করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ১৭টি বিরোধী রাজনৈতিক দল। এই বিষয়ে একটি প্রস্তাবনা পাস হয়েছে আজকের বৈঠকে। আরও পড়ুন: মহারাষ্ট্রে বাড়ল করোনা, দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যাটা শুনলে চমকে যাবেন

দেখুন টুইট

রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে প্রার্থী ও রণকৌশল ঠিক করতে আজ দিল্লির মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডাকা বৈঠকে যোগ দেয় ১৭টি বিরোধী দলের প্রতিনিধিরা। টিআরএস, আপ, অকালি দল-সহ পাঁচটি এনডিএ-তে না থাকা রাজনৈতিক দল এই বৈঠকে যোগ দেয়নি। মোট ২২টি বিরোধী দলকে বৈঠকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিকে, রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের (President Election 2022) প্রার্থী করা বিষয়ে তাঁদের মতামত জানতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee), মল্লিকার্জুন খার্গে (Mallikarjun Kharge) এবং অখিলেশ যাদবের (Akhilesh Yadav) সঙ্গে কথা বললেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ও বিজেপি নেতা রাজনাথ সিং (Rajnath Singh)। যদি প্রয়োজন হয়, তবে আগামী ১৮ জুলাই রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের ভোটগ্রহণ হবে। ভোট গণনা হবে ২১ জুলাই। ভোটের জন্য প্রায় ১০.৮৬ লক্ষ ইলেকটোরাল কলেজে রয়েছে। মোট ইলেকটোরাল কলেজের অর্ধেকের কিছু কম বিজেপি এবং তার জোটের অংশীদার রয়েছে।