Priyanka Gandhi Flays Yogi Adityanath Government: যোগীর রাজ্যে সবথেকে বেশি অত্যাচারিত মহিলারা, অপরাধের তালিকা দেখে ক্ষোভে ফেটে পড়লেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী
প্রিয়াঙ্কা গান্ধী (Photo Credit: ANI)

লখনউ, ২২ অক্টোবর: মহিলারা উত্তরপ্রদেশের মাটিতে নিরাপদ নন। এই রাজ্য মহিলাদের বিরুদ্ধে অত্যাচারের নিরিখে অপরাধী তালিকার একেবারে শীর্ষে অবস্থান করছে। এজন্য রাজ্য সরকারের লজ্জা পাওয়া উচিত। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের উচিত গোটা পরিস্থিতি যাতে ইতিবাচক মোড় নেয় সেদিকে লক্ষ্য রাখা। উত্তরপ্রদেশে পা রেখেই যোগী আদিত্যনাথের সরকারের (Yogi Adityanath Govt) বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। ২০২২-এর আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে উত্তরপ্রদেশে দলের ঘাঁটি মজবুত করতে রাজীব ও সোনিয়া তনয়া গত লোকসভা নির্বাচনের আগে থেকেই ময়দানে নেমে পড়েছেন। জোর কদমে চলচে কংগ্রেসের সাগঠনিক ক্ষমতা মজবুতের কাজ।

মঙ্গলবার কংগ্রেসের অন্তর্বতীকালীন সভাপতি মা সোনিয়া গান্ধীর (Sonia Gandhi) নির্বাচনী কেন্দ্র রায়বেরিলিতে যান প্রিয়াঙ্কা। সেখানেই তিনি সাংবাদিকদের বলেন, সারা দেশে ৩ লক্ষ ৫৯ হাজার ৮৪৯টি হমলার ঘটনা ঘটেচে মহিলাদের উপরে। এর মধ্যে উত্তরপ্রদেশেই ঘটেছে ৫৬ হাজার ১১টি মামলা, যেগুলির সবকটিই মহিলাদের উপরে নারকীয় অত্যাচারের ঘটনা। গত জুনমাসেই এই গুন্ডারাজ নিয়ে সরব হয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। তিনি সেসময় বলেন, উত্তরপ্রদেশের গুন্ডারা যা মনে চাইছে তাই করে বেড়াচ্ছে। অপরাধের যেন লেখাজোকা নেই। সরকার কি গুন্ডাদের সামনে নতজানু হয়ে বসে পড়ল নাকি যে একের পর এক অপরাধ ঘটেই চলেছে আর সরকার বোবা কালার অভিনয় করে যাচ্ছে। সেই টুইট বার্তার পরে ফের যোগীর সরকারকে তুলোধনা করলেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। আরও পড়ুন-

উত্তরপ্রদেশের বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন বিরোধী রাজনৈতিক দল যেমন বহুজন সমাজ পার্টি ও সমাজবাদি পার্টির প্রধানদের সঙ্গে একপ্রস্থ আলোচনা সেরে ফেলেছেন প্রিয়াঙ্কা (Priyanka Gandhi)। শোনভদ্র কাণ্ডে তাঁর বিরোধীদের সঙ্গে শলা পরামর্শের বিষয়টি পোড়া খাওয়া রাজনীতিকদের মনে আলাদা জায়গা করে নিয়েছে। যখন উত্তরপ্রদেশের পূর্বাংশের সাদারণ সম্পাদক হিসেবে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে দল নির্বাচিত করল তখন রাহুল বলেছিলেন, বড় কোনও উদ্দেশ্য সাধনের জন্যই তিনি বোনকে উত্তরপ্রদেশে পাঠালেন। শুধু লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেত চারমাসের জন্য প্রিয়াঙ্কা উত্তরপ্রদেশে আসেননি। কংগ্রেসের লক্ষ্য ২০২২ বিধানসভা নির্বাচন। গত ২৩ জানুয়ারি একথাই সাংবাদিকদের বলেছিলেন তৎকালীন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী (Rahul Gandhi)।