গণেশ মূর্তি বিসর্জন না দিয়ে প্রশাসনের হাতে তুলে দিয়ে দৃষ্টান্ত লাতুরের পুজো উদ্যোক্তাদের
লাতুরে গণেশ মূর্তি সংগ্রহ করা হয়েছে, (Photo Credits: ANI)

লাতুর, ১৫ সেপ্টেম্বর : পরিবেশ-বান্ধব গণেশ পুজো করে চমকে দিলেন মহারাষ্ট্রের লাতুর (Latur) জেলার বাসিন্দারা। জলাশয়ে গণেশ মূর্তি (Ganesh idol) নিরঞ্জনের পরিবর্তে (traditional immersion) তাঁরা পুনর্ব্যবহারের (recycling)জন্য জেলা প্রশাসনের কাজে রাখতে দিচ্ছেন। আর তা করেই পরিবেশ-বান্ধব উৎসব আয়োজনের উদাহরণ স্থাপন করেছেন তাঁরা। লাতুরের হওয়া কয়েক হাজার গণেশ মূর্তি জেলা প্রশাসনের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। এই মূর্তিগুলি আবার প্রশাসন বিনামূল্যে প্রতিমা শিল্পীদের হাতে তুলে দিয়ে পুনর্ব্যবহারযোগ্য করা হবে। বৃষ্টির অভাবে এই অঞ্চলে জল-সংকট মোকাবেলায় জেলা প্রশাসন এই উদ্যোগ নিয়েছে।

 

লাতুরের জেলাশাসক জি শ্রীকান্ত (G Shrikant )বলেন, "বৃষ্টিপাতের অভাবে লাতুরের জল-সংকট রয়েছে, তাই আমরা এবার জলাশয়ে গণেশ মূর্তি নিরঞ্জন করছি না। পরিবর্তে আমরা এই প্রতিমাগুলি দেব প্রতিমা নির্মাতাদের। " ডেপুটি পুলিশ সুপার সচিন সাঙ্গলে বলেন, "জেলায় এ বছর কম বৃষ্টিপাতকে সামনে রেখে জেলা প্রশাসন ভক্ত ও গণেশ পুজো কমিটির সদস্যদের সাথে বৈঠক করে। সকলে মিলে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন যে তাঁরা নিরঞ্জনের পরিবর্তে প্রশাসনের কাছে প্রতিমা দান করবেন।" আরও পড়ুন :  NRC Issue: 'বাংলাদেশীদের জন্য রাজনীতি করছেন মমতা ব্যানার্জি, উনি বরং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার চেষ্টা করুন,' কটাক্ষ বিজেপি বিধায়ক সুরেন্দ্র সিংয়ের

 

তিনি আরও বলেন যে এই সমস্ত মূর্তিগুলি নিরঞ্জনের স্থানে সংগ্রহ করা হয়েছে। আমরা এগুলি পুনর্ব্যবহারের জন্য প্রতিমা নির্মাতাদের কাছে ফিরিয়ে দেব। অন্য সাজসজ্জা একটি বিশেষ জায়গায় নিরঞ্জন করা হবে। সাঙ্গলে জানান, লাতুর প্রশাসন এখনও পর্যন্ত ৪৮৫টি বড় মূর্তি এবং ২৮ ৭৭৫টি ছোটো প্রতিমা সংগ্রহ করেছে।

 

কলকাতায় দুর্গাপুজো সামনেই। সেখানে এখনও পর্যন্ত সরকারি বা বেসরকারি তরফে প্রতিমা পুনর্ব্যবহারের কোনও উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। প্রতিমা নিরঞ্জন গঙ্গায় এখনও করা হয়। যদিও প্রতিমার কাঠামো খানিক পরই কলকাতা পৌরনিগমের কর্মীরা জল থেকে তুলে নেয়।