Tomb of Sand Wins Booker Prize: উজ্জ্বল স্বীকৃতি! প্রথম হিন্দি উপন্যাস হিসেবে বুকার পুরস্কার পেল গীতাঞ্জলি শ্রী-র 'টম্ব অফ স্যান্ড'
Daisy Rockwell And Geetanjali Shree (Photo: Twitter)

লন্ডন, ২৭ মে: লেখিকা গীতাঞ্জলি শ্রী (Geetanjali Shree)-র হিন্দি উপন্যাস 'টম্ব অফ স্যান্ড' (Tomb of Sand) কোনও ভারতীয় ভাষায় প্রথম উপন্যাস হিসেবে আন্তর্জাতিক বুকার পুরস্কার (International Booker Prize) জিতেছে। বৃহস্পতিবার লন্ডনে একটি অনুষ্ঠানে গীতাঞ্জলীর হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়েছে। গীতাঞ্জলী যে হিন্দি উপন্যাসটি লেখেন সেটির নাম 'রেত সমাধি'। বইটির ইংরেজি অনুবাদ করেছেন ডেইজি রকওয়েল (Daisy Rockwell)।

পুরস্কার গ্রহণ করে গীতাঞ্জলি শ্রী বলেছেন, "আমি কখনই বুকারের স্বপ্ন দেখিনি, আমি কখনই ভাবিনি যে আমি পারব। কী বিশাল স্বীকৃতি, আমি বিস্মিত, আনন্দিত, সম্মানিত এবং বিনীত। পুরস্কার পাওয়ায় এক বিষণ্ণ তৃপ্তি আছে। 'রেত সমাধি' বা 'টম্ব অফ স্যান্ড' হল আমাদের বসবাসের জগতের জন্য একটি শোভা। একটি স্থায়ী শক্তি, যা আসন্ন ধ্বংসের মুখে আশাকে ধরে রাখে। বুকার অবশ্যই এটিকে অনেক বেশি লোকের কাছে নিয়ে যাবে।"

হিন্দি কথাসাহিত্যের এই প্রথম বুকার স্বীকৃতির বিষয়ে ৬৪ বছর বয়সি লেখিকা বলেছেন "এটা ভাল লাগছে। কিন্তু আমার এবং এই বইটির পিছনে রয়েছে হিন্দি এবং অন্যান্য দক্ষিণ এশীয় ভাষায় একটি সমৃদ্ধ এবং বিকাশমান সাহিত্য ঐতিহ্য। বিশ্বসাহিত্য এই ভাষার সেরা লেখকদের সম্পর্কে জানার জন্য আরও সমৃদ্ধ হবে। এতে শব্দভাণ্ডার বৃদ্ধি পাবে।" আরও পড়ুন: BJP: রাজনীতি না করে বাড়ি গিয়ে রান্নাবান্না করুন, সুপ্রিয়া সুলেকে কটাক্ষ বিজেপি নেতার

৮০ বছরের এক বৃদ্ধার গল্প বলেছে ‘রেত সমাধি’ উপন্যাসটি। স্বামীর মৃত্যুর পর পাকিস্তানে পাড়ি দিয়েছেন সেই বৃদ্ধা। দেশভাগ দেখেছিলেন তিনি। সেই সময়ের ক্ষতগুলিই যেন ফের ছুঁয়ে দেখতে চান বৃদ্ধা। একজন মেয়ের ভূমিকায়, মায়ের ভূমিকায়, এক নারীর ভূমিকায়, কিংবা এক নারীবাদীর ভূমিকায় ভিন্ন ভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে সেই সময়ের মূল্যায়ন করতে চাইছেন তিনি।