Dawood Ibrahim: আন্ডার ওয়ার্ল্ডে ইডির বড়সড় সাফল্য, দুবাইয়ে বাজেয়াপ্ত দাউদ সহযোগী ইকবাল মিরচির ২০৩ কোটির সম্পত্তি
ইডি-র লোগো(Photo Credits: ANI)

নতুন দিল্লি, ২২ সেপ্টেম্বর: আন্ডার ওয়ার্ল্ডের একটি বড়সড় চক্রকে মুঠোবন্দি করল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। আর্থিক তছরূপের মামলায় দাউদ ইব্রাহিম (Dawood Ibrahim) কাস্কারের প্রয়াত সহযোগী ইকবাল মিরচির ২০০ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত হল দুবাই থেকে। এই প্রসঙ্গে এক ইডি কর্তা সংবাদ সংস্থা আইএনএস-কে জানান, “ আর্থিক তছরূপ প্রতিরোধ আইনের আওতায় সংযুক্ত আরব আমীরশাহি ও দুবাই থেকে ইকবাল মিরচি ও তার পরিবারের সদস্যদের নামে রাখা ১৫টি সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। যার আর্থিক মূল্য ২০০ কোটি টাকা। এই মামলার সঙ্গে ইকবাল মিরচির মুম্বইয়ের সম্পত্তিরও যোগ রয়েছে বলে খবর।”

জানা গিয়েছে, আর্থিক তছরূপ প্রতিরোধ আইনের আওতায় ইডি লন্ডন, দুবাই ও মুম্বইতে থাকা ইকবাল মিরচির আরও ৩০ রকম সম্পত্তির সন্ধান পেয়েছে। যার আর্থিক মূল্য এক হাজার কোটি টাকা। এই মর্মে গতবছর ডিসেম্বরই মুম্বই পুলিশ মিরচির ৬০০ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে। সম্পত্তি কেনাবেচায় বেআইনি লেনদেন-সহ মুম্বইয়ের ওর্লিতে প্রাইম লোকেশনে থাকা হোটেল সিভিউ, মরিয়ম লজ, শাহিল বাংলো, রাবিয়া ম্যানসন, সিজয় হাউসের বিক্রি সংক্রান্ত বিষয়ে ইতিমধ্যেই ইকবাল মিরচি ও তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। পুলিশের হাতে বাজেয়াপ্ত হওয়া সম্পত্তির তালিকায় রয়েছে ওর্লির সিজয় হাউস ও টার্ডেও এলাকার অরুণ চেম্বার্স। ভারতীয় মুদ্রায় যার বাজার মূল্য ৭৬ কোটি টাকা। আরও পড়ুন-Arjun Kapoor: প্লাজমা দান করবেন করোনাজয়ী অভিনেতা অর্জুন কাপুর?

অন্যদিকে ভারতীয় মুদ্রায় ৫০০ কোটি টাকার বাজেয়াপ্ত সম্পত্তির মধ্যে রয়েছে ওর্লির প্রাইম লোকেশনে থাকা শাহিল বাংলো, মরিয়ম লজ, রাবিয়া ম্যানসন, হোটেল সিভিউ। এছাড়াও ক্রফোর্ড মার্কেটের তিনটি দোকান ও লোনাভলায় ৫ একর জমি। এই আর্থিক তছরূপের মামালায় ইডি ইতিমধ্যেই অভিনেত্রী শিল্পা শেট্টির স্বামী রাজ কুন্দ্রা, প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা এনসিপি নেতা প্রফুল্ল প্যাটেল-সহ অনকেকেই জিজ্ঞাসাবাদ করে ফেলেছে।