Devendra Fadnavis: ৪০ হাজার কোটি সরাতেই মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন দেবেন্দ্র ফড়নবিশ! বিস্ফোরক দাবি বিজেপি নেতা অনন্ত হেগড়ের
দেবেন্দ্র ফড়নবিশ (Photo Credits: ANI)

মুম্বই, ২ ডিসেম্বর: মুখ্যমন্ত্রী (CM) পদে শপথগ্রহণ করে বিধানসভার (Assembly) আস্থা ভোটে জিতেছেন উদ্ধব ঠাকরে (Uddhav Thackeray)। তারপরেও মহারাষ্ট্রের মহানাটক বহাল তবিয়তে চলছে। তারমধ্যে নয়া সংযোজন জুটল বিজেপি নেতা অনন্ত হেগড়ের (Anant Hegde) বিস্ফোরক দাবি। কর্নাটকের বিজেপি নেতা অনন্ত কুমার হেগড়ে বললেন, রাজ্য তহবিল থেকে ৪০ হাজার কোটি টাকা কেন্দ্রের কাছে পাঠাতেই প্রায় ৮০ ঘণ্টার জন্য মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন মহারাষ্ট্রের প্রাক্তন নায়ক দেবেন্দ্র ফড়নবিশ। আর যারপরেই প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হেগড়ের মন্তব্যে নিয়ে হইচই শুরু হয়ে গিয়েছে মহারাষ্ট্র সহ দেশের রাজনৈতিক মহলে।

এমনকী সোশ্যাল মিডিয়ায় (Social Media) ছড়িয়ে পড়েছে তাঁর এই মন্তব্য। দলীয় কর্মীদের উদ্দেশে হেগড়েকে বলতে শোনা গিয়েছে, 'কেন্দ্রীয় তহবিল থেকে পাওয়া ৪০ হাজার কোটি ব্যবহারের ক্ষমতা থাকে একজন মুখ্যমন্ত্রীর কাছে। দেবেন্দ্র ফড়নবিশ জানতেন যদি মহা বিকাশ আগাড়ি ক্ষমতায় আসে তাহলে তা তারা সেই তহবিলের অপব্যবহার করবে।' ওই ভিডিওতে অনন্ত হেগড়েকে আরও বলতে শোনা গিয়েছে, 'BJP সরকার গড়তে পারবে না। এই বিষয়টি স্পষ্ট হওয়ার পরেই এমন নাটকের সিদ্ধান্ত হয়। ফড়নবিশ মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেন। চেয়ারে বসার ১৫ ঘণ্টার মধ্যেই ৪০ হাজার কোটি টাকা কেন্দ্রের কাছে ফেরত পাঠিয়ে দেন।' প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হেগড়ের এমন মন্তব্যে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। আরও পড়ুন: Hyderabad Vet Rape and Murder Case: দোষীদের জনতার সামনে এনে পিটিয়ে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া উচিত, বললেন জয়া বচ্চন

এই প্রসঙ্গে গত সোমবার সংবাদমাধ্যমের সামনে মুখ খুলেছেন বাধ্য হয়েছেন প্রাক্তন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী তথা বর্তমানে মহারাষ্ট্রের বিরোধী দলনেতা দেবেন্দ্র ফড়নবিশ (Devendra Fadnavis)। তিনি জানিয়েছেন, 'মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে এমন কোনও গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত তিনি নেননি। এগুলি মিথ্যা অভিযোগ।