Bhuj College: হস্টেলের ছাত্রীরা ঋতুমতী কি না তা পোশাক খুলে পরীক্ষা করল গুজরাতের সাহজানান্দ গার্লস ইনস্টিটিউট, দুর্বিষহ অভিজ্ঞতার সাক্ষী ৬৮ ছাত্রী
দুর্বিষহ অভিজ্ঞতার সাক্ষী ৬৮ ছাত্রী (Photo Credits: Youtube/@TV9 Gujarati)

ভুজ, ১৪ ফেব্রুয়ারি: সারা দেশ জুড়ে পিরিয়ডস (Periods) নিয়ে মানুষের মনের ভিতর জমে থাকা অন্ধ কুসংস্কার ভাঙার চেষ্টা চলছে। চলছে হাতে-গালে স্যানিটারি ন্যাপকিন (Sanitary Napkin) চিটিয়ে 'পিরিয়ড একটি স্বাভাবিক বিষয় (Period Is a Normal Thing)' সমাজকে এমন বার্তা দেওয়ার কাজ। বানানো হচ্ছে 'প্যাডম্যানে' (Padman)-র মত বলিউড ছবি। সমাজের এমন উত্তরণের দিনেই উত্তর-পশ্চিমের রাজ্য গুজরাতে (Gujrat) ঘটে গেল এক অতীব লজ্জাজনক এক ঘটনা। চলতি সপ্তাহের সোমবার রুপানির (Vijay Rupani) রাজ্যের ভূজে একটি মেয়েদের কলেজ হস্টেলে হস্টেলের আবাসিকদের কারও পিরিয়ড চলছে কি না তা নিশ্চিত হতে তাঁদের বিবস্ত্র করা হল (Bhuj College Girls Forced to Remove Undergarments to Prove They Weren't Menstruating)। আর এই সব কাণ্ড টাই ঘটল কলেজের প্রধান শিক্ষিকা এবং অন্যান্য শিক্ষিকাদের উপস্থিতিতেই!

এদিন ঘটনাটি ঘটে ভূজের হজানান্দ গার্লস ইনস্টিটিউটে। জানা গিয়েছে, সোমবার হস্টেলের বাগানে একটি ব্যবহৃত প্যাড (Pad) পড়ে থাকতে দেখা যায়। ঘটনার সূত্রপাত হয় সেখান থেকেই। কোন ছাত্রী এই মুহূর্তে মাসিকে রয়েছেন তা পরীক্ষা করতেই এমন পদক্ষেপ নেন কলেজ কর্তৃপক্ষ বলে জানা গিয়েছে। সূত্র মারফৎ জানা গিয়েছে, হস্টেলের মোট ৬৮ জনকে এই লজ্জাজনক পরীক্ষা দিতে হয়েছে। তাঁদের মধ্যে একজন জানান, ‘অসম্ভব মানসিক নির্যাতনের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছে আমাদের। কী পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল বলে বোঝাতে পারব না।’ ঘটনার পরেই অবশ্য পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন কচ বিশ্ববিদ্যালয় (Kotch University) কর্তৃপক্ষ। এই কমিটির শীর্ষে রয়েছেন ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য দর্শনা ঢোলাকিয়া। বৃহস্পতিবার কলেজে গিয়েও কথা বলেন কমিটি সদস্যরা। আরও পড়ুন: AGR Case: তিনমাসে কেন মেটেনি বকেয়া ঋণ, টেলিকম অপারেটরদের আদালত অবমাননার নোটিস ধরিয়ে ভর্ৎসনা সুপ্রিম কোর্টের

এই ঘটনায় ক্ষিপ্ত অভিভাবকরা (Guardians) কলেজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করার ভাবনা-চিন্তা করছেন বলে জানা গিয়েছে।