অজিত দোভালকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর পদমযার্দা দিয়ে ফের করা হল জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা
জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল। (Photo Credits: IANS)

নয়া দিল্লি,৩ জুন: শোনা যাচ্ছিল, অজিত দোভাল (Ajit Doval)-কে এবার চমক দিয়ে মন্ত্রী করতে পারেন নরেন্দ্র মোদি (Narendra modi)। কিন্তু সে সব না করে, অজিত দোভালকে তাঁর পছন্দের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা হিসেবে হিসেবে আরও পাঁচ বছর রেখে দিলেন মোদি। তবে এবার জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল পেতে চলেছেন ক্যাবিনেট মন্ত্রী-র পদমর্যাদা। ৭৪ বছর বয়সী এই আইপিএস অফিসারকে ক্য়াবিনেট পদের মর্যাদা দিয়ে মোদি বুঝিয়ে দিলেন তিনি জাতীয় নিরাপত্তাকে ঠিক কতটা গুরুত্ব দেন।

বিজেপি-র অন্দরে অনেকেই বলেন, গত পাঁচ বছরে অমিত শাহ-র পর দোভালের ওপরেই সবচেয়ে বেশি ভরসা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। আর ভরসার মূল্য রাখতে পারায় দোভালকে ক্য়াবিনেট পদমর্যাদা দিয়ে পুরস্কার দিলেন মোদি। মোদিকে বিদেশ নীতি থেকে কূটনীতি. সবেতেই পরামর্শ দেন দোভাল। দোভালের ওপর বরাবরই খুব আস্থা রাখেন প্রধানমন্ত্রী। কারণ দোভাল প্রায় সবেতেই মোদিকে সফলতার মুখ দেখিয়েছেন। গত পাঁচ বছরে নিরাপত্তা বিষয়ক গত পাঁচ বছরে নিরাপত্তা বিষয়ক প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, তাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে দোভালের। তবে দোভাল বিজেপি-র হয়ে কাজ করছেন বলে লোকসভা নির্বাচনের আগে তোপ দেগেছিল কংগ্রেস। প্রয়াত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর জমানায় সরকারের নির্দেশে সন্ত্রাসবাসী মাসুদ আজহারকে কান্দাহরে ছেড়ে এসেছিলেন তৎকালীন গোয়েন্দাকর্তা দোভাল। তা নিয়েও তাঁকে আক্রমণ করেছিলেন বিরুধোরা।

২০১৪-র মে-তে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা পদে নিযুক্ত হয়েছিলেন অজিত দোভাল। সফলতার সঙ্গে নানা কাজ করেন তিনি। গতবছর নভেম্বরে তাঁকে চিনের সঙ্গে সীমান্ত বিষয়ক আলোচনায় ভারতের প্রতিনিধি নিযুক্ত করা হয়। ডোকলাম বিতর্ক সমাধানের দায়িত্বও তাঁর কাঁধে দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। এর আগে প্রাক্তন বিদেশ সচিব এস জয়শঙ্করকেও মন্ত্রিসভায় এনে পুরস্কার দেন প্রধানমন্ত্রী। পাঁচ বছর সাফল্যের সঙ্গে বিদেশ সচিবের পদ সামলানোয় জয়শঙ্করকে বিদেশমন্ত্রী করেন প্রধানমন্ত্রী।