200 Crore Extortion Case: 'ফাঁসানো হয়েছে', জ্যাকলিনের অভিযোগের পালটা চ্যাট, স্ক্রিনশর্ট, রেকর্ডিং ফাঁসের হুমকি সুকেশের
Sukesh Chandrasekhar and Jacqueline Fernandez (Photo Credits: X)

নয়া দিল্লি, ২২ ডিসেম্বরঃ ২০০ কোটি টাকার আর্থিক তছরুপের মামলায় (200 Crore Money Laundering Case) মূল অভিযুক্ত সুকেশ চন্দ্রশেখরের (Sukesh Chandrasekhar) সঙ্গে নাম জড়িয়েছে বলি অভিনেত্রী জ্যাকলিন ফার্নান্ডেজের (Jacqueline Fernandez)। তদন্তের স্বার্থে একাধিকবার ইডি (ED) দ্বারা ডাক পাঠানো হয়েছে নায়িকাকে। চলেছে জেরার পর জেরা। মামলায় হাজিরা দিতে হয়েছে আদালয়েও। এমনকি ইডি-র তরফে ফৌজদারি মামলা জারি করা হয়েছে জ্যাকলিনের বিরুদ্ধে। দিন কয়েক আগেই নিজের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা বাতিল করার আর্জি নিয়ে দিল্লি হাইকোর্টের (Delhi High Court) দ্বারস্থ হয়েছিলেন বলি অভিনেত্রী। জ্যাকলিন দাবি করেছেন, সুকেশ তাঁকে ফাঁসিয়েছেন।

আর্থিক কেলেঙ্কারি মামলায় তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রত্যাহারের আর্জি নিয়ে গত ১৯ ডিসেম্বর দিল্লি হাইকোর্টের দারস্ত হন জ্যাকলিন ফার্নান্ডেজ (Jacqueline Fernandez)। অভিযুক্ত সুকেশ চন্দ্রশেখর (Sukesh Chandrasekhar) তাঁকে ফাঁদে ফেলেছেন বলে আদালতে জানিয়েছেন নায়িকা। এবার জ্যাকলিনের অভিযোগে ফুঁসিয়ে উঠেছেন সুকেশ। অভিনেত্রীর অভিযোগের জবাবে সদ্য একটি চিঠি লিখেছেন অভিযুক্ত সুকেশ। নাম না করে জানিয়েছেন, 'অদেখা' সমস্ত প্রমাণ এবার তিনি ফাঁস করবেন। তাঁর (জ্যাকলিনের নাম না করে) সঙ্গে চ্যাট, স্ক্রিনশর্ট, রেকর্ডিং ইত্যাদি যা যা রয়েছে সেই সমস্ত 'অদেখা' প্রমাণ সুকেশ ফাঁসের হুমকি দিয়েছেন।

চিঠিতে কনম্যান (Sukesh Chandrasekhar) আরও লিখেছেন, যেহেতু 'সেই ব্যক্তি' তাঁকে 'শয়তান' বানিয়েছে তাই তাঁর বিরুদ্ধে এবার কড়া পদক্ষেও নেওয়া ছাড়া তাঁর কাছে আর কোন উপায় নেই। সকলের সামনে সত্যকে তুলে ধরবেন তিনি। আইন মেনেই সমস্ত প্রমাণ সামনে আনবেন বলে জানিয়েছেন সুকেশ।