নতুন বছরেই ধামাকা, ই-বাইক আনছে হার্লে ডেভিডসন
হার্লে ডেভিডসন লাইভ ওয়্যার (Photo Credit: Twitter)

এবার ভারতের বাজারে ই-বাইক নিয়ে আসছে হার্লে ডেভিডসন (Harley-Davidson)। চলতি মাসের ২৭ তারিখেই এই ই-বাইকের বিশদ জানা যাবে দেশের বিভিন্ন অটো এক্সপো-তে। এই বৈদ্যুতিন বাইক মাত্র সাড়ে তিন সেকেন্ডে ০-১০০ কিলোমিটার গতিতে পৌঁছতে পারে। আরও নির্দিষ্ট করে বললে, ২ সেকেন্ডের কম সময়ে প্রতি ঘণ্টায় ১০০ থেকে ১২৮ কিলোমিটার স্প্রিন্ট নিতে পারবে এই বাইক। বলা বাহুল্য, এই প্রথম হার্লে ডেভিডসন বাইক আনছে মার্কেটে। কাস্ট অ্যালুমিনিয়ামের তাই নামে ভারিক্কি হলেও হার্লে ডেভিডসন লাইভ ওয়্যারম (LiveWire) একেবারেই ওজনে হাল্কা। ২২ লক্ষ টাকা খসালেই চলিত বছরের শেষে অথবা আগামী বছরের শুরু বাড়ির গ্যারাজে শোভা পাবে হার্লে ডেভিডসন লাইভ ওয়্যার। আরও পড়ুন-পুজোর আগে সুখবর, দেড় লাখের কমে মিলছে রয়্যাল এনফিল্ডের নতুন বাইক

উল্লেখ্য, ২০১৮-র একটি মোটরবাইক শো-এ আত্মপ্রকাশ করে হার্লে ডেভিডসন লাইভ ওয়্যার। এর বেশ কিছু বিশেষত্বের মধ্যে একটি হল নতুন বৈদ্যুতিন পাওয়ার ট্রেন। ফিচার্সেও তাক লাগিয়েছে এই ই-বাইক। টাচস্ক্রিনের সাহায্যে ‘লাইভ ওয়্যার’-এ স্মার্টফোন এবং ওয়্যারলেস হেডসেট ব্যবহারের সুবিধে থাকছে। ৪.৩ ইঞ্চির টিএফটি টাচস্ক্রিন ইনফোটেনমেন্ট ডিসপ্লে টিল্ট অ্যাডজাস্টেবল। রয়েছে এইচডি অ্যাপের সুবিধা, যার জেরে বাইক চালাতে চালাতেই থাকছে গান শোনা, ফোনে কথা বলা এবং নেভিগেশন ইনস্ট্রাকশন অনুসরণ করার সুবিধে।

প্রস্তুত কারক সংস্থার দাবি, শক্তিশালী ব্যাটারির সুবাদে এই বাইকের রেঞ্জ অসাধারণ। এক বারের চার্জে পাড়ি দিতে পারে ২৩৫ কিলোমিটার পর্যন্ত। বাইকের সর্বোচ্চ টর্ক ১১৬ এন এম। লাইভ ওয়্যারের ‘এইচ ডি রেভেলেশন’ নামে ওই পাওয়ারট্রেনের বৈশিষ্ট্য হল চুম্বকীয় বৈদ্যুতিন মোটর ও ১৫.৫ কিলোওয়াটের ব্যাটারি। তাই ধৈর্য্য ধরে কয়েকটা দিন অপেক্ষা করুন, হাতের মুঠোয় চলে আসবে স্বপ্নের বাইক। আশা করা হচ্ছে, খুব শিগগির হার্লে ডেভিডসনের ওয়েব সাইটেই এই লাইভ ওয়্যারের দেখা মিলবে।