Lok Sabha Election 2024: রাজ্যে চার দফায় ১৮টি আসনে ভোট শেষ, বাকি ২৪টি লোকসভায়, মাঝপথে কে কোথায় দাঁড়িয়ে
Narendra Modi, Rahul Gandhi, Mamata Banerjee. (Photo Credits: FB)

পার্থ প্রতিম চন্দ্র: দেখতে দেখতে লোকসভা নির্বাচনে চারটে দফায় ভোটগ্রহণ হয়ে গেল। ১৯ এপ্রিল থেকে শুরু হয়েছে সাত দফার লোকসভা নির্বাচনের ভোট পর্ব। ১৩ মে-তে এসে পুরো উত্তর বঙ্গ সহ বাংলার মোট ১০টি জেলায় লোকসভা ভোটগ্রহণ শেষ হয়ে গিয়েছে। রাজ্যের ৪২টি-র মধ্যে ১৮টি লোকসভায় ভোটগ্রহণ সম্পূর্ণ হয়েছে। বাংলায় বাকি তিনটি দফায় ২৪টি লোকসভা আসনে ভোটগ্রহণ হবে। দার্জিলিং, বালুরঘাট থেকে বীরভূম, বর্ধমানে ভোট মিটে গিয়েছে।

সব রাজনৈতিক দলেরই দাবি প্রথম চারটে দফায় তাদের ফল দারুণ হবে। আসলে এটা একটা নির্বাচনী কৌশল। আমরাই জিতছি, জিতে বসে আছি, কথাগুলো ভোটারদের কানে যতটা ঢোকাতে পারবেন নেতা-নেত্রীরা ততই তাদের আগামী কয়েক দফায় অতিরিক্ত সুবিধা পাবেন। এর কারণ একটা বড় অংশের ভোটার তাদেরই ভোট দেয়, যাদের তারা মনে করবেন জিতবেন। পরাজিত প্রার্থীদের ভোট দিতে চান না অনেকেই। আর তাই নরেন্দ্র মোদী থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, রাহুল গান্ধী থেকে অমিত শাহ-রা বারবার বিভিন্ন সভায় বারবার দাবি করছেন, তারাই প্রথম চার দফায় বেশী আসনে জিতছেন। আরও পড়ুন-'বড় কাশি থেকে মনোনয়ন মোদীর, ছোট কাশীতে প্রার্থী আমি', বললেন কঙ্গনা

কোন কোন কেন্দ্রে ভোট হয়ে গিয়েছে

১) জলপাইগুড়ি (এসসি), ২) আলিপুরদুয়ার (এসটি), ৩) কোচবিহার, ৪) দার্জিলিং, ৫) বালুরঘাট, ৬) রায়গঞ্জ, ৭) মালদা উত্তর, ৮) মালদা দক্ষিণ, ৯) মুর্শিদাবাদ, ১০) জঙ্গিপুর, ১১) কৃষ্ণনগর, ১২) রানাঘাট, ১৩) বহরমপুর, ১৪) বীরভূম, ১৫) বোলপুর, ১৬) বর্ধমান পূর্ব, ১৭) বর্ধমান দুর্গাপুর, ১৮) আসানসোল।

এবার আসা যাক হিসেবের কথায়। ভোটের মাঝখানে কোনওভাবেই সমীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা যায় না। তাই পয়লা জুনের আগে কোনওভাবেই বলা যাবে না সম্ভাব্য ফল। কিন্তু প্রতিটি দলই তাদের মত করে হিসেব করে চলেছে। তৃণমূলের কর্মী-সমর্থকদের হিসেব হল, প্রথম চার দফায় ১৮টি- মধ্যে তাদের অন্তত ১৪টি-তে জয় নিশ্চিত, ২টি-তে লড়াই হাড্ডাহাড্ডি। উত্তর বঙ্গে এবার জোড়া ফুল ফুটতে চলেছে বলে তৃণমূল সমর্থকদের দাবি। বহরমপুরে অধীর চৌধুরীর হার, বালুরঘাটে সুকান্ত মজমুদারের হার, বর্ধমান দুর্গাপুরে দিলীপ ঘোষের হার নিয়ে তৃণমূল কর্মীদের মধ্যে দাবিটা সবচেয়ে জোরালো হচ্ছে। জোড়া ফুল শিবির, এবার উত্তর বঙ্গে বুথভিত্তিক সংগঠনের কাজে খুশি।

বিজেপি-র হিসেব আবার উল্টো। পদ্ম শিবিরের দাবি, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী-কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ-রা বংলায় প্রচারে আসার পর তাদের পালা হাওয়া লেগেছে। আর তাই গতবারের মত পাহাড় সহ উত্তর বঙ্গের সব আসনে পদ্ম ফুটছে। সেই সঙ্গে কৃষ্ণনগরে মহুয়া মৈত্র-র হার, আসানসোলে শত্রুঘ্ন সিনহা-র হার নিয়ে বিজেপি শিবির নিশ্চিত। বিজেপি-র হিসেবে প্রথম তিন দফায় তাদের ঘরে অন্তত ১১-১২টি আসন জুটেছে। আগামী তিন দফায় গতবারের জেতা আসনগুলির পাশাাপশি অপ্রত্যাশিতভাবে আরও বেশ কিছু কেন্দ্রে পদ্ম ফুটছে। এই আশায় বুক বাঁধছেন রাজ্যের মোদী ভক্তরা।

এদিকে, কংগ্রেস শিবির নিশ্চিত, বহরমপুরে এবারও অধীর ম্যাজিক চলবে। পাশাপাশি মালদার দুটি আসনে এবার জয় আসবে বলে দাবি কংগ্রেস কর্মীদের। রায়গঞ্জে ভিক্টরের অঘটন নিয়ে আশাবাদী হাত শিবির। সিপিএম সমর্থকরা বলছেন, মুর্শিদাবাদে মহম্মদ সেলিম বাজিমাত করে ফেলেছেন। পাশাপাশি উত্তর বঙ্গের দুটি আসনে অন্তত দ্বিতীয় স্থানে থাকা নিয়েও আশার কথা শোনা যাচ্ছে বাম শিবিরের দাবি।

আগামী তিন দফা তৃণমূলের শক্ত ঘাঁটি। এবার কী হবে? রাজ্যের শাসক দলের দাবি, ২০২১ বিধানসভার মত দক্ষিণ বঙ্গে কার্যত নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে বিজেপি। বিজেপি-র হিসেব, গতবারের জেতা আসন তো বটেই তমলুক, কাঁথি সহ আরও বেশ কিছু তৃণমূলের জেতা আসনে গেরুয়া উড়বে। বামেদের সব আশা যাদবপুর নিয়ে। শ্রীরামপুর, দমদমে ভাল ভোট মিলনবে বলেও সিপিএম কর্মী-সমর্থকদের আশা।

 

পঞ্চম দফায় কবে কোথায় কোথায় ভোটগ্রহণ-

২০ মে, সোমবার

১) আরামবাগ (তফসিলি), ২) বনগাঁ (এসসি), ৩) ব্যারকপুর, ৪) হাওড়া, ৫) উলুবেড়িয়া, ৬) শ্রীরামপুর, ৭) হুগলি।