Kolkata Shocker: ফিরল রবিনসন স্ট্রিটের স্মৃতি, ভবানীপুরের ফ্ল্যাটে ভাইয়ের মৃতদেহ আগলে দিদি
প্রতীকী ছবি (Photo Credits: ANI)

কলকাতা, ৪ এপ্রিল: রবিনসন স্ট্রিটের (Robinson Street) ছায়া এবার ভবানীপুরে (Bhowanipore)। ভাইয়র মৃতদেহ আগলে ঘরবন্দী থাকলেন দিদি। স্থানীয় কাউন্সিলরের উদ্যোগে আজ দেহ উদ্ধার হয়। পুলিশ জানিয়েছে, মৃত ব্যক্তির নাম শান্তনু দে (৪৩)। দিদির নাম মহাশ্বেতা দে (৫৪)। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে, সাতদিন আগেই ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। যদিও মৃত্যুর আসল কারণ ময়নাতদন্তের পরেই জানা যাবে।

গত কয়েকদিন ধরে ওই ফ্ল্যাট থেকে দুর্গন্ধ বেরতে থাকে। সেখানকার আবাসিকদের দাবি, ফ্ল্যাটে ঢুকতে চাইলেও মহিলা তাঁদের ঢুকতে দিতেন না। দিদি ও ভাই কেউই কোনও উপার্জন করতেন না। কাউন্সিলর খাবার পাঠিয়েছেন এই বলে তাঁদের ফ্ল্যাটে ঢুকে যান স্থানীয়রা। সেখানে গিয়ে দেখতে তাঁরা দেখতে পান, বিকৃত অবস্থায় পড়ে রয়েছে মৃতদেহ। দুর্গন্ধ বেরোচ্ছে সেখান থেকেই। এরপর দেহ উদ্ধার হয়। দেহটি ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ। আরও পড়ুন: Jammu and Kashmir: জম্মু ও কাশ্মীরের কুলগামে গুলির লড়াই, নিহত ৩ সন্ত্রাসবাদী

৭০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলার অসীম বসু (Ashim Basu) বলেন, "দলীয় এক কর্মী ওই একই পাঁচতলা আবাসনের একতলায় থাকেন। আবাসনের তিনতলায় থাকা ওই দুই ভাই-বোনকে প্রতিদিনই খাবার দিতে যেত দলীয় কর্মীরা। এদিন তারা ওই ফ্ল্যাটে গিয়ে ডাকতেই দিদি মহাশ্বেতাদেবী বেরিয়ে এলে দলের কর্মীরা তাঁকে বলে, খাবার যে তারা দিচ্ছে, তার একটি ছবি নিতে হবে। এরপর দু’জন ঘরের ভিতরে ঢুকে দেখে শান্তনুবাবুর দেহ পড়ে রয়েছে। তীব্র দুর্গন্ধ। সারা শরীরে পচন ধরেছে। তা দেখেই ওই দু’জনে এসে আমাকে জানায়। আমি সঙ্গে সঙ্গে ওই ফ্ল্যাটে যাই এবং দুর্গন্ধে রীতিমতো অসুস্থ হয়ে পড়ি। এরপরই পুলিশে খবর দিই।"