শিক্ষক নিগ্রহকে কেন্দ্র করে শহরে চাঞ্চল্য,  যাদবপুরে আক্রান্ত অধ্যাপক
প্রতীকী ছবি(File Photo)

কলকাতা, ২৬ জুলাই: শহরে ফের অধ্যাপক নিগ্রহের ঘটনা ঘটল। এবার হামলার মুখে পড়লেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক। শুক্রবার বেলা দুটো বেজে ১৫ মিনিট নাগাদ চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরের চার নম্বর গেটের অদূরেই। আক্রান্ত অধ্যাপকের নাম আব্দুল কাফি, তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা পড়ান। ওই সময় চার নম্বর গেটের বাইরের এক দোকান থেকে তিনি চা খাচ্ছিলেন। আক্রমণকারী আচমকাই তাঁর উপরে গিয়ে পড়ে। প্রত্যক্ষদর্শীরাই অভিযুক্তকে ধরে ফেলে। সে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র। আরও পড়ুন-যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত মনুয়া-অজিত, অনুপম হত্যার সাজা ঘোষণা বিচারকের

জানা গিয়েছে, এদিন দুপুরে বাংলা বিভাগের অধ্যাপক একটি চায়ের দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে চা খাচ্ছিলেন। সেই সময় তাঁর উপরে ঝাঁপিয়ে পড়ে এক যুবক। অভিযোগ, তাঁর চুলের মুঠি ধরে মারতে শুরু করে। আক্রমণের ধাক্কা বিহ্বল অধ্যাপক ততক্ষণে মাটিতে পড়ে গিয়েছেন। সঙ্গে সঙ্গে এলাকায় ভিড় জমে যায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা ও ছাত্ররা ছুটে এসে অধ্যাপককে উদ্ধার করেন। আক্রমণকারী যুবককেও ধরে ফেলা হয়। অভিযুক্ত যুবক বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র। ২০১৫-তে যাদবপুর থেকে পাশকরে বেরোয় সে। বাড়ি হুগলির আরামবাগে। কিন্তু ঠিক কী কারণে বাংলার অধ্যাপককে সে আক্রমণ করল তা এখনও স্পষ্ট নয়। তার নাম রাজেশ সাঁতরা। আব্দুল কাফির উপরে হামলা চালানোর আগে সে নাকি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে গিয়েও হইচই করে এসেছে। তবে তার ক্ষোভের কারণ সম্পর্কে কেউই কিছু বুঝতে পারেননি। এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা রক্ষীরা তাকে আটক করে রেজিস্ট্রারের অফিসে নিয়ে গিয়েছেন।

ছাত্রদের একাংশের মতে মানসিক কোনও আঘাতের জেরে এমন কাণ্ড ঘটিয়ে থাকতে পারে রাজেশ। তবে যতক্ষণ না বিষয়টি নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ হচ্ছে ততক্ষণ প্রকৃত কারণ জানা সম্ভব নয়। এদিকে আচমকা হামলার মুখে পড়ে বেজায় থমকে গিয়েছেন অধ্যাপক আব্দুল কাফি, তাঁর শারীরিক আঘাতও লেগেছে। গোটা ঘটনার জেরে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।