Hooghly: খানাকুলে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ঘিরে তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ, দলীয় কর্মীকে পিটিয়ে খুনের অভিযোগ বিজেপির
প্রতীকী ছবি (Photo Credits: File Image)

খানাকুল, ১৫ অগস্ট: হুগলির খানাকুলে (Khanakul) জাতীয় পতাকা উত্তোলনকে কেন্দ্র করে তৃণমূল ও বিজেপির (BJP) মধ্যে সংঘর্ষ হয়। লাঠি দিয়ে পিটিয়ে এক বিজেপি কর্মীকে (BJP Leader) খুনের অভিযোগ ওঠে। বিজেপির অভিযোগ, তৃণমূল সমর্থকদের লাঠিপেটায় গুরুতর জখম হন ওই বিজেপি কর্মী। পরে তাঁর মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় আটজনকে আটক করা হয়েছে। গেরুয়া শিবিরের দাবি, পিটিয়ে হত্যা তৃণমূলের। বিজেপির কোন্দলেই খুন, পাল্টা তৃণমূল।

রাহুল বলেন, বিজেপি চলে ভারতীয় নীতিতে। ভারতের ইতিহাসকে মর্যাদা দেয়। এনিয়ে পাল্টা আক্রমণ শানিয়েছেন তৃণমূলের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। মোদীকে 'হিন্দুত্বের প্রধানমন্ত্রী' বলে কটাক্ষ করেন তিনি। রাহুলও তার পাল্টা জবাব দিয়েছেন। এ দিন মমতা ব্যানার্জিকে ব্য়ক্তিগতভাবে আক্রমণ করেন রাহুল সিনহা। মুসলিম তোষণের অভিযোগ তোলেন তিনি। ফিরহাদ হাকিমকে পাকিস্তান পাঠানোর হুঁশিয়ারি দেন তিনি। বলেন, "ওর এখানে থাকার কোনও অধিকারই নেই।" দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে রাহুল সিনহা বলেন, সারা বিশ্বে করোনা বাঘের মতো থাবা দিচ্ছে। আর ভারতে এসে করোনা বিড়ালে পরিণত হয়েছে। আরও পড়ুন, স্বাধীনতা দিবসে রেড রোডে পতাকা উত্তোলন করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি, বিনামূল্যে ৫ লাখ মাস্ক বিলি

শনিবার সকাল থেকে নিজ নিজ পার্টি অফিসে পতাকা তোলার উদ্যোগ শুরু করে বিজেপি ও তৃণমূল কর্মী-সমর্থকরা। দুটি দলেরই পার্টি অফিস সামান্য দূরত্বে। ফলে যাতাযাতের পথে একে অপরকে লক্ষ্য করে অপত্তিকর মন্তব্য করতে থাকে বলে স্থানীয় সূত্রে খবর। এর মধ্যেই সুজেরঘাট এলাকায় দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। শুরু হয়ে যায় বোমাবাজি। ওই সংঘর্ষের মধ্যে গুরুতর আহত হয়ে রাস্তায় পড়ে যান বিজেপি কর্মী।