TikTok ব্যবহার করেন! তাহলে হয়তো আপনার পছন্দের এই ভিডিওগুলো ডিলিট করে দিয়েছে কোম্পানি, কেন জানেন!
টিক টক থেকে মুছে ফেলা হল ৬০ লক্ষ ভিডিও। (Photo Credits: Getty Images)

নয়া দিল্লি, ২৩ জুলাই: ব্যান হওয়ার আশঙ্কায় নড়েচড়ে বসল চিনের বাইট ড্যান্স কোম্পানির অ্যাপ 'টিক টক'(TikTok)। ভারতের সবচেয়ে বেশি ডাউনলোড হওয়া জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়ায় বিনোদনী অ্যাপ টিকটক তাদের প্ল্যাটফর্ম থেকে ৬০ লক্ষ ভিডিও ডিলিট করে ফেলল। টিকটক, হ্যালোর মত অ্যাপ দেশ বিরোধী কার্যকলাপে সাহায্য করছে এই অভিযোগে আরএসএস(RSS)-র স্বদেশী জাগরণ মঞ্চ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি লিখে আপত্তি জানানোর পর বড় পদক্ষেপ নিল টিক টক।

দেশ ২০ কোটি ডাউনলোড হওয়া এই অ্যাপের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হল, তাদের কমিউনিটি গাইডলাইন ভঙ্গের দায়ে ৬০ লক্ষ ভিডিও টিক টক থেকে মুছে ফেলা হয়েছে। আরও পড়ুন-গঙ্গাদর্শনে এসে তলিয়ে যাচ্ছে যুবক, হিরোর মতো ঝাঁপিয়ে উদ্ধার পুলিশের(দেখুন ভিডিও)

ভারতে এখন টিকটকের ব্যবহারকারী ২০ কোটির বেশি। যেখানে অন্তত ১৭টি ভাষায় অ্যাপটি ব্যবহার করেন ব্যবহারকারীরা। ৭৫ বিলিয়ন ডলারের প্রতিষ্ঠানটি বিশ্বে এখন সবচেয়ে দামি স্টার্টআপ হিসেবে উঠে এসেছে। গত এক বছর ধরে কমিউনিটি গাইডলাইন আরও ভাল করে খতিয়ে দেখার পর ৬০ লক্ষ ভিডিও ডিলিট করা হয়েছে বলে জানা টিকটক কর্তা সচিন শর্মা। সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ, ভারত বিদ্বেষী প্রচার এবং বেআইনি কার্যকলাপ চালানোর অভিযোগে টিক টক এবং হেলো অ্যাপ কর্তৃপক্ষকে চিঠি পাঠাল কেন্দ্রীয় ইলেকট্রনিক্স এবং তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক।

এদিকে, নিষেধাজ্ঞার মুখে দাঁড়িয়ে আগামী ছয় থেকে এক বছরের মধ্যে টিক টক ভারতে ডেটা সেন্টার স্থাপনের কাজ শুরু করবে। এই ডেটা সেন্টার স্থাপন করতে আগামী তিন বছরে টিক টক ৭ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করার পাশাপাশি একাধিক উন্নয়নমূলক কাজ করার পরিকল্পনাও রয়েছে টিক টকের। । কেন্দ্রীয় সরকার নিজের দেশের প্রযুক্তি ব্যবহারকারীদের তথ্য বাইরের দেশে যাতে চলে না যায় সেদিকে খুব বেশি শক্ত অবস্থান নিয়েছে। ফলে একশো কোটি ব্যবহারকারীর মাইলফলকে পৌঁছানো টিক টকও এবার ভারতে ডেটা সেন্টার স্থাপন করছে।