Abhinav Bindra's Vocal Tonic To Team India: সেমিফাইনালের আগে রোহিতদের ভোকাল টনিক বিন্দ্রার, সোনার ছেলের সোনার পরামর্শ রোহিতদের

বুধবার বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে নিউ জিল্যান্ডের বিরুদ্ধে নামছে ভারতীয় ক্রিকেট দল। ১২ বছর পর ফের ওয়ানডে বিশ্বকাপ জেতা থেকে আর মাত্র দুটি ম্যাচ দূরে টিম ইন্ডিয়া। চলতি বিশ্বকাপে রোহিত শর্মারা একেবারে নিখুঁত ক্রিকেট খেলে লিগ পর্যায়ে ৯টি-তেই জিতে সেমিফাইনালে উঠেছেন। কিন্তু টিম ইন্ডিয়াকে নিয়ে সংশয় নক আউট রাউন্ড থেকে। আইসিসি ট্রফিতে বারবার নক আউটেই হেরেছে ভারত। ২০১৪ টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনাল থেকে ২০১৬ টি টোয়েন্ট বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল, ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল, দু'দুবার বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালেও হেরেছে ভারত। লিগের খেলায় একশোয় একশো পেলেও নক আউট পর্ব শুরু হলেই দেখা যাচ্ছে টিম ইন্ডিয়ার ক্রিকেটারদের স্নায়ুতে সমস্যায় পা নড়বড় করছে। অন্তত ফলাফল সেই কথাই বলছে।

সাম্প্রতিক অতীতে রোহিতদের নক আউটের ফলই চিন্তায় রাখছে সবাইকে। টিম ইন্ডিয়া অবিশ্বাস্য ফর্মে থাকলেও হারলেই বিদায়ের মঞ্চ নিয়েই আশঙ্কা থাকছে। আর এই আশঙ্কার জায়গায় দাঁড়িয়ে বুধবার কিউইদের বিরুদ্ধে মেগা ম্যাচে ভারতীয় দলের ওয়াংখেড়েতে নামার আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ দিলেন অলিম্পিক্সে ব্যক্তিগত বিভাগে স্বাধীন ভারতের প্রথম সোনাজয়ী অভিনব বিন্দ্রা।  আরও পড়ুন-ভারত-নিউ জিল্যান্ড সেমিতে আম্পয়ার কারা,জানুন

দেখুন বিন্দ্রার এক্স পোস্ট

২০০৮ বেজিং অলিম্পিকে শ্য়ুটিংয়ে সোনা জয়ী বিন্দ্রা তাঁর এক্স অ্যাকাউন্টে রোহিতদের উদ্দেশ্যে বেশ কিছু পরামর্শ দিলেন। লম্বা পোস্টে অভিনব বিন্দ্রা লিখলেন বেশ কিছু গুরুত্বপুর্ণ কথা। রোহিতদের পরামর্শ দিয়ে বিন্দ্রা ভোকাল টনিকের ঢঙে বর্তমান সময়টা উপভোগ করতে বললেন। রুটিনে জোর দিতে বললেন। প্রেসারকে কাজে লাগিয়ে ভাল পারফরম্যান্স করতে সাহসী ক্রিকেট খেলার পরামর্শ দিয়ে বিন্দ্রা লিখলেন, পরিস্থিতি দাবি করলে গুগলি দিতে পিছিয়ে এসো এসো না। সমস্যা, চাপ কথাগুলো হল 'আমি ইতিহাস তৈরি করতে চলেছি' কথাটার শুধু একটা প্রতিশব্দ। সুতরাং যখন মনে হবে আর যেতে পারছি না, তখন শুধু হেঁটে যেও না। এতটাই জোরে যাও যাতে গভীর গর্ত তৈরি হয়, আর তার ওপর গগণচুম্বি অট্টালিকা তৈরি করা যায়।"

এরপর অনুপ্রেরণামুলক কথার বহর আরও বাড়িয়ে বিন্দ্রা লিখলেন, "শেষে একটাই কথা বলব, চাপ হল শেষে বিকেলের সূর্যে তোমার ছায়ার মত। মনে হতে পারে তোমার ছায়াটা বেশ লম্বা। কিন্তু সেটা কখনই ক্রিকেটের বলের চেয়ে দীর্ঘ নয়। এটা থেকে পালিয়ে যেও না। জড়়িয়ে ধরো, উপভোগ করো, হাত মেলাও। পিচের মধ্যে নাচতে তুমি এমনিই শিখে যাবে।"একদম শেষে ভারতীয় ক্রিকেটারদের উদ্দেশ্যে অলিম্পিক সোনা জয়ী শ্যুটার লেখেন, এগিয়ে চলো। নক আউটে বিপক্ষকে নক আউট করো। কিন্তু মনে রেখো যদি তোমরা কঠিন উইকেটে পড়ো, কঠিন পরিস্থিতি পড়ে যাও তাহলে একটা লম্বা শ্বাস নিও।"