Average Pitch: মোদী স্টেডিয়ামের মত বিশ্বকাপে ইডেনের পিচও গড়পড়তা, আইসিসি-র মার্কশিট
Narendra Modi Stadium. (Photo Credits: Twitter)

বিশ্বকাপের ফাইনালে ভারত-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচে আমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামের পিচ নিয়ে বিতর্ক হয়েছিল। মোদী স্টেডিয়ামের পিচ খেলার পক্ষে মোটেই যোগ্য ছিল না এমনটা বিশেষজ্ঞদের অনেকেই বলেছিলেন। তবে আইসিসি-র পিচ রেটিংয়ে বিশ্বকাপের ফাইনালের মোদী স্টেডিয়ামের পিচ পেল 'অ্যাভরেজ'রেটিং। ফাইনালের পিচ বেশ স্লো ছিল। ভারতীয় ব্যাটাররা বেশ সমস্যায় পড়েছিলেন মোদী স্টেডিয়ামের পিচে। তবে জবাবে ব্যাট করতে নেমে ট্রাভিস হেড যখন খেলছিলেন, তখন পিচ তেমন খারাপ দেখায়নি। মোদী স্টেডিয়ামের মত ইডেনের পিচকেও তেমন একটা নম্বর দিল না আইসিসি। মোদী স্টেডিয়ামের ফাইনালের মত ইডেনের সেমিফাইনালের পিচ 'অ্য়াভারেজ' তকমা পেল।

বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ইডেনে মুখোমুখি হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া-দক্ষিণ আফ্রিকা। ইডেনের সেই পিচকেও অ্যাভারেজ তকমা দিল আইসিসি। প্রসঙ্গত, ইডেনে সেমিফাইনালে দক্ষিণ আফ্রিকা মাত্র ২১২ রানে অল আউট হয়ে গিয়েছিল। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ১৭৭ রানের মধ্যে অজিরা তাদের পাঁচ তারকা ব্যাটারকে হারিয়ে ছিল। শেষ অবধি অবশ্য ব্যাট হাতে গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলে স্টার্ক অজিদের জিতিয়ে দেন।

ফাইনালের মত মোদী স্টেডিয়ামে আয়োজিত ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের পিচও অ্যাভারেজ রেটিং পায়। গ্রুপ লিগে টিম ইন্ডিয়ার অস্ট্রেলিয়া (চেন্নাই) ও ইংল্যান্ড (লখনৌ)-র বিরুদ্ধে ম্যাচের পিচও অ্যাভারেজ রেটিং পেয়েছে। এই চারটি ম্যাচই লো স্কোরিং হয়।

আইসিসি পিচের পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে রেটিংয়ে ৬টি গ্রেড দেয়- ভেরি গুড (দারুণ), গুড (ভাল), অ্যাভারেজ (গড়পড়তা), বিলো অ্যাভারেজ (গড়পড়তার চেয়ে নিচে), পুওর (জঘন্য) , আনফিট (খেলার অযোগ্য)।