NZ vs AUS 2nd Test Day 3 Stumps: কিউই বোলিংয়ের বিপদ কাটিয়ে অজিদের জয়ের ভরসা হেড-মার্শ
AUS vs NZ (Photo Credit: BLACKCAPS/ X)

নিউজিল্যান্ড ক্রাইস্টচার্চ টেস্টে আজ চমৎকার দিন, পিছিয়ে থেকে জয়ের জন্য নিজেদের প্রস্তুত করছে কিউইরা। প্রথম দিনে ১৬২ রানে অলআউট হওয়ার পরে ঘুরে দাঁড়িয়েছে কিউইরা, তৃতীয় দিনের খেলা শেষে অবশ্য ব্ল্যাক ক্যাপসরা এখন খেলাকে কিছুটা নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে। সিরিজ জয়ের জন্য ২৭৯ রান তাড়া করতে নেমে অস্ট্রেলিয়া ৪ উইকেটে ৩৪ রানে বিপদে পড়লে ট্রাভিস হেড এবং মিচেল মার্শ পাল্টা আক্রমণ করে অপরাজিত ৪৩ রানের জুটিতে পৌঁছে দিনের খেলা শেষ করে। জয়ের জন্য সফরকারীদের প্রয়োজন আরও ২০২ রান। তৃতীয় দিনে কিউইদের অব্যাহত প্রতিরোধের মূলে ছিলেন রচিন রবীন্দ্র, ড্যারিল মিচেল এবং ম্যাট হেনরি ও বেন সিয়ার্সের ফাস্ট বোলিং জুটি। গতকাল হাফ সেঞ্চুরি করা টম ল্যাথাম অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে তার প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরির জন্য প্রস্তুত বলে মনে হলেও প্যাট কামিন্সের শিকার হন তিনি। Glenn Phillips Stunning Catch: দেখুন, গ্লেন ফিলিপসের আশ্চর্য ক্যাচে হতবাক মার্নাস লাবুশেনও

ল্যাথাম ৭৩ রানে আউট হওয়ার পরেও রবীন্দ্র এবং মিচেল দ্রুত আরেকটি বড় পার্টনারশিপের ভিত্তি তৈরি করে, উভয় ব্যাটসম্যানই নাথান লায়নের স্পিনের বিরুদ্ধে দুর্দান্ত খেলেন। রবীন্দ্র আত্মবিশ্বাসী হয়ে এবং মিচেল মার্শের বলে স্ট্রেট ড্রাইভ করে হাফসেঞ্চুরি করেন। পুরানো বলে উইকেট নেওয়া একটি চ্যালেঞ্জ হিসাবে প্রমাণিত হলে অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক সহ আটজন বল করেন। অবশেষে দ্বিতীয় নতুন বলে জশ হ্যাজেলউডের শিকার হওয়ার আগে মিচেল ৫৮ রান করে ১২৩ রানের জুটি গড়ে কিউইদের কিছুটা স্বস্তি দেন। এরপরে কামিন্স আক্রমণে ফিরে আসেন এবং রবীন্দ্রকে ৮২ রানে আউট হন। এরপর টম ব্লান্ডেল ক্যামেরন গ্রিনের ওয়াইড ডেলিভারিতে কভারে লাবুশানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান।

ভালো লিড নিয়ে কিউইরা যখন ৩০০ ছাড়িয়ে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত তখন শেষ সেশনের ৩০ মিনিটেই সব বদলে যায়। কুগেলেইন ও গ্লেন ফিলিপসের মধ্যকার অর্ধশতরানের জুটি ভাঙেন নাথান লায়ান। ৪৪ রানে কুগেলেইনকে আউট করে নিউজিল্যান্ডকে ৩৭২ রানে অলআউট করে তৃতীয় উইকেট নেন লায়ান। গত বছর এজবাস্টনে অস্ট্রেলিয়া ২৭৯ রানের বেশি রান তাড়া করে (২৮২), তবে নতুন বল হাতে কিউইদের চমৎকার বোলিং অজিদের বিপদ বাড়িয়ে তোলে। ওপেনার হিসেবে ফের ব্যর্থ হন স্টিভ স্মিথ এবং হেনরির বলে এলবিডব্লিউ হন। লাবুশানে একটি ড্রপ ক্যাচে বেঁচে গেলেও দুই বল পরে সিয়ার্সের বলেই তাঁর হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান। এরপরে হেনরি উসমান খোয়াজাকে ফেরান এবং সিয়ার্স অতিরিক্ত বাউন্স দিয়ে গ্রিনের স্টাম্প ওড়ান।