IND vs ENG 3rd Test Result: যশস্বীর ডাবল সেঞ্চুরি, জাদেজার পাঁচ উইকেটে ব্যাজবলের ইতি টানল রোহিতরা
IND Test Team (Photo Credit: BCCI/ X)

অবশেষে ইংল্যান্ডের 'ব্যাজবল'-এর ইতি টানল রোহিত শর্মার ভারত। রাজকোট টেস্টে স্টোকসদের বিপক্ষে ৪৩৪ রানের জয় তুলে সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে গেল ভারত। আজ টেস্টের চতুর্থ দিনের শুরুতে যশস্বী জয়সওয়াল চলতি দুই টেস্টে দ্বিতীয়বারের মতো ডাবল সেঞ্চুরি করেন এবং সরফরাজ খান তার প্রথম টেস্টে দ্বিতীয় হাফসেঞ্চুরি করেন। তারা ষষ্ঠ উইকেটে অপরাজিত ১৭২ রানের জুটি গড়েন যা আসে মাত্র ১৫৮ বলে এবং ভারতকে ৫৫৭ রানের বিশাল রানের লক্ষ্য দিতে সহায়তা করে। আজ দ্বিতীয় সেশনের কিছু আগে মাত্র ৪ উইকেট খুইয়ে ৪৩০ রানে ভারত ডিক্লেয়ার করে। এর আগে শুভমন গিল এবং কুলদীপ যাদব দিনের শুরুটা ভাল করলেও ৯১ রানে আউট হয়ে যাওয়ায় হতাশ হন গিল। তৃতীয় দিন চোট পেয়ে অবসর নেওয়ার পর ১০৬ রানে ফের ইনিংস শুরু করে ক্রিজে ফেরেন জয়সওয়াল। Yashasvi Jaiswal Sixes Record: টেস্টে এক ইনিংসে ভারতীয়দের সবচেয়ে বেশি ছক্কার রেকর্ড ভাঙলেন যশস্বী জয়সওয়াল

এই বিশাল রানের পাহাড় তাড়া করতে নেমে ইংল্যান্ড দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাজবল ভুলতে বসে। প্রথম তিন ওভারে একরানও না আসার পর যখন ধীরে ধীরে ১৫ রান করে ইংল্যান্ড তখনই বাজে রান আউট হন আগের ইনিংসের শতকবীর বেন ডাকেট। এরপর দ্বিতীয় সেশনের ঠিক আগেই বুমরাহর বলে আম্পায়রস কলে এলবিডাব্লিউ আউট হন জ্যাক ক্রলি। এরপর শেষ সেশনে জাদেজা খেলায় নায়ক হিসেবে উঠে আসেন এবং ফেরান অলি পোপ এবং জনি বেয়ারস্টোকে। এরপর রুট এবং অধিনায়ক স্টোকস যখন শেষ চেষ্টা শুরু করেন তখন স্কোর ৪ উইকেটে ২৮ রান। রুট এখনও তাঁর খারাপ ফর্ম থেকে বেরোতে পারেননি এবং মাত্র ৭ রানে জাদেজার বলে এলবিডাব্লিউ হন। এরপর স্টোকস আর ফোক্স মিলেও তেমন কিছু করতে পারেনি জাদেজা তাঁকেও ফেরালে শেষ অবধি মার্ক উড স্কোর ১০০ পার করতে সাহায্য করেন কিন্তু সেটাও ইংল্যান্ডকে লজ্জার হার থেকে রক্ষা করতে পারেনি। রাজকোটে জাদেজা ৫ উইকেট নেন এবং কুলদীপ নেন ২ উইকেট।

গতকাল বেন ডাকেটের দুর্দান্ত সেঞ্চুরির পর যশস্বী জয়সওয়ালের (Yashasvi Jaiswal) তৃতীয় সেঞ্চুরিতে ইংল্যান্ডকে ধুলোয় মিশিয়ে রাজকোটে তৃতীয় টেস্টের তৃতীয় দিনে তাঁর দলকে এগিয়ে দেন। জয়সওয়াল নয়টি চার এবং পাঁচটি ছক্কার সাহায্যে ১৩৩ বলে ১০৩ রান করার পরে পিঠে ব্যাথা অনুভব করায় অবসর নেন। যদিও রজত পাটিদার ১০ বলে শূন্য রানে টম হার্টলির হাতে আউট হন এবং ভারত কুলদীপকে নাইটওয়াচম্যান হিসেবে পাঠাতে বাধ্য হয়। এদিকে ৩৫ ওভারে ২০৭/২ রানে খেলা শুরু করা ইংল্যান্ড ব্যাটসম্যানরা মাত্র ৩১৯ রানে অলআউট হয়ে যায় ।

দ্বিতীয় দিনে ধ্রুব জুরেল (৪৬), রবিচন্দ্রন অশ্বিন (৩৭) ও জসপ্রীত বুমরাহর (২৬) গুরুত্বপূর্ণ অবদানের পর ভারত প্রথম ইনিংসে ৪৪৫ রান করে। অশ্বিন ও জুরেল জুটি অষ্টম উইকেটে ৭৭ রান যোগ করার পর দ্বিতীয় দিনের প্রথম ঘণ্টায় কুলদীপ যাদব (৪) ও রবীন্দ্র জাদেজাকে (১১২) আউট করে ইংল্যান্ড। জুরেল দুর্দান্ত সংযম দেখিয়ে ইংলিশ বোলারদের আক্রমণের মোকাবেলায় প্রশংসনীয় ধৈর্য দেখান। অপর প্রান্তে জুরেল মানিয়ে নেওয়ায় অশ্বিন রান তোলার দায়িত্ব নেন এবং শেষ পর্যন্ত অষ্টম উইকেটে এই জুটি ৫০+ রানের জুটি গড়ে। ইংল্যান্ডের হয়ে জেমস অ্যান্ডারসন ইনিংসের প্রথম উইকেটটি তুলে নেন। মার্ক উড অবশ্য ইনিংসের সর্বোচ্চ উইকেট ((৪/১১৪) শিকারী হিসাবে শেষ করেন, রেহান আহমেদ দুটি উইকেট নেন অশ্বিন এবং জুরেলের এছাড়া জাদেজাকে ফেরান রুট। তবে অশ্বিন তাঁর ৫০০ তম উইকেটও এই টেস্টে তুলে মাইলফলক গড়েন।

রাজকোটে উদ্বোধনী দিনের তৃতীয় সেশনে দুর্দান্ত সেঞ্চুরিতে পৌঁছে ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মার সঙ্গে ভারতীয় ইনিংসকে আরও শক্তিশালী করেন রবীন্দ্র জাদেজা। রোহিত ও জাদেজা সেঞ্চুরি করে ২০৪ রান যোগ করে ভারতকে লড়াইয়ে ফেরান। জাদেজা তার ঘরের মাঠে তার চতুর্থ টেস্ট সেঞ্চুরিতে করেন এবং রোহিত ১১ ইনিংসে তার প্রথম সেঞ্চুরি করেন। যেখানে দ্রুত ৪৮ বলে অভিষেকেই প্রথম হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন সরফরাজ খান। রাজকোটে প্রথম দিনে দুর্দান্ত সেঞ্চুরি করে সিরিজে রানের খরা শেষ করেন ভারত অধিনায়ক রোহিত। এছাড়া রোহিতের ইনিংস এমন এক সময়ে আসে যখন ভারতের পার্টনারশিপের খুব প্রয়োজন ছিল। কারণ ভারত জয়সওয়াল (১০), শুভমন গিল (০) ও রজত পাটিদারের (৫) দ্রুত তিন উইকেট হারায়।