Rahul Gandhi On Maharashtra: মহারাষ্ট্রে গণতন্ত্রকে খুন করা হয়েছে, নীরবতা ভেঙে সংসদে সরব রাহুল গান্ধী
রাহুল গান্ধী (Photo Credit: IANS)

নতুন দিল্লি, ২৫ নভেম্বর: মহারাষ্ট্রে চলতে থাকা রাজনৈতিক ডামাডোল নিয়ে অবশেষে মুখ খুললেন কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধী (Rahul Gandhi)। সোমবার লোকসভায় তিনি বলেন, মহারাষ্ট্রে গণতন্ত্রকে খুন করা হয়েছে। সংসদের স্পিকার ওম বিড়লা যখন রাহুলকে কিছু বলার অনুরোধ করেন, তখনই তিনি এই মন্তব্য করেন। যদিও গত একমাস ধরে মহারাষ্ট্রের রাজনৈতিক ইতিহাস ঘটনাবহুল রয়েছে। এরমধ্যে একদিনও বিধানসভা ভোট পরবর্তী পরিস্থিতি নিয়ে রাহুল গান্ধীকে কোনও মন্তব্য করতে দেখা যায়নি। তিনি এদিন বলেন, মহারাষ্ট্র নিয়ে আমায় সংসদে কিছু প্রশ্ন করতে চেয়েছিলাম, তবে বলার মতো কিছু খুঁজেই পাচ্ছি না। কেননা মহারাষ্ট্রে গণতন্ত্রকে খুন করা হয়েছে।

শিবসেনা-এনসিপি-কংগ্রেস জোট সরকার গড়ছে চূড়ান্ত হওয়ার পরেই মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন দেবেন্দ্র ফডনবিশ। আর উপমুখ্যমন্ত্রীর পদে বসেন অজিত পাওয়ার। এদিকে আজ সুপ্রিম কোর্টে এনসিপি ও কংগ্রেসের হয়ে দাঁড়ানো আইনজীবী অভিষেক মনু সিংভি (Abhishek Manu Singhvi) বলেন, "দু'পক্ষই যখন ফ্লোর টেস্ট চাইছে। তখন কেন দেরি হওয়া উচিত? এখানে এনসিপির একজনও বিধায়ক কি বলেছেন যে আমরা বিজেপি জোটে যোগ দেব? একা কোনও বিধায়কের চিঠি রয়েছে কি? এই কথা বলে কি কেউ চিঠি দিয়েছে? গণতন্ত্রের প্রতি এটি জালিয়াতি।" তিনি আরও বলেন, "বিজেপি জোট আদালতে যা দেখিয়েছে তা হল ৫৪ এনসিপি বিধায়কদের স্বাক্ষর। সেই চিঠি অজিত পাওয়ারের পরিষদীয় দলনেতা নির্বাচন সংক্রান্ত। সরকার গঠনে বিজেপি জোটে যোগ দেওয়ার জন্য তাঁদের সমর্থন স্বাক্ষরিত হয়নি। চিঠিটি অজিত পাওয়ারের বিজেপি জোটে যাওয়ার সমর্থনের ছিল না? কীভাবে রাজ্যপাল এই বিষয়টি দেখলেন না।" আরেক আইনজীবী কপিল সিবাল (Kapil Sibal) বলেন, "২৪ ঘণ্টার মধ্যে বিধানসভায় ভোটাভুটি হোক। ভিডিওগ্রাফি করা হোক এবং এক ব্যালটেই ভোট হোক। রাতের আড়ালে সবকিছু ঘটেছে। এখন দিনের আলোয় ফ্লের টেস্ট হোক।" আরও পড়ুন-Maharashtra Government Formation: দেবেন্দ্র ফডনবিশ পদত্যাগ করুন, নাহলে ফের রাজনৈতিক লড়াইয়ের ইঙ্গিত নবাব মালিকের

আগামীকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় মহারাষ্ট্র (Maharastra) বিধানসভায় ফ্লোর টেস্ট নিয়ে মামলার রায় দেবে সুপ্রিম কোর্ট। গতকাল কেন্দ্রীয় সরকার, মহারাষ্ট্র সরকার, দেবেন্দ্র ফডনবিশ (Devendra Fadnavis) ও অজিত পাওয়ারকে (Ajit Pawer) নোটিশ পাঠায় শীর্ষ আদালত। সরকার গঠনের আহ্বান জানিয়ে দেবেন্দ্র ফডনবিশকে পাঠানো রাজ্যপালের চিঠি এবং বিধায়কদের সমর্থনের কথা জানিয়ে লেখা দেবেন্দ্র ফডনবিশের চিঠি শীর্ষ আদালতে পেশ করতে বলা হয়। আজ শুনানিতে দু'পক্ষের বক্তব্য শোনার পর তিন বিচারপতির বেঞ্চ জানায়, আগামীকাল সকাল সাড়ে দশটায় রায় দেওয়া হবে। আজ আদালতে সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা (Tushar Mehta) বলেন, দেবেন্দ্র ফডনবিশের পক্ষে ১৭০ বিধায়কের সমর্থন রয়েছে দেখেই তাঁকে সরকার গঠনে আহ্বান জানান মহারাষ্ট্রের রাজ্যপাল ভগৎ সিংহ কোশিয়ারি।