Maharashtra Government Formation: উদ্ধব ঠাকরের ইচ্ছেতে মহারাষ্ট্রে শিবসেনার নেতা নির্বাচিত হলেন একনাথ শিণ্ডে, খুব শিগগির সরকার গঠন করবে বিজেপি
একনাথ শিণ্ডে (Photo Credit: Facebook)

মুম্বই, ৩১ অক্টোবর: চূড়ান্ত রাজনৈতিক চাপানউতোরের পর এদিন দেবেন্দ্র ফডনবিশ জানিয়ে দিলেন যে শিবসেনাকে সঙ্গে নিয়ে মহারাষ্ট্র সরকার গড়তে চলেছে বিজেপি। ঠিক কোন ঢিলে শিবসেনাকে বিজেপি বধ করে ফেলল আর লাঠি ও ভাঙল না সাপও মরল না তা এখনই জানা যাচ্ছে না। তবে আদিত্য ঠাকরের ইচ্ছেয় মহারাষ্ট্রে শিবসেনার মুখ হচ্ছেন একনাথ শিণ্ডে (Eknath Shinde )। তাঁকেই মহারাষ্ট্র বিধানসভায় দলের নেতা নির্বাচন করল শিবসেনা। এদিকে গত ১ অক্টোবর মহারাষ্ট্র বিধানসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর থেকেই ক্ষমতা বণ্টন নিয়ে বিজেপি ও শিবসেনার মধ্যে দড়ি টানাটানি চলছে। আজ শিণ্ডের নাম ঘোষণা হওয়ার পর মনে হল সেই দড়ি টানাটানিতে আপাতত ইতি পড়েছে।

উল্লেখ্য, ২৮৮ আসনের মহারাষ্ট্র বিধানসভায় ৫৬টি আসনে জেতা শিবসেনা চাইছিল, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হন আদিত্য ঠাকরে। না হলে লিখিত ভাবে বিজেপি তাদের জানাক যে আড়াই বছর মুখ্যমন্ত্রীর পদটি শিবসেনাকে তারা ছেড়ে দেবে। ক্রমেই বিজেপির উপরে তারা চাপ বাড়াচ্ছিল। ১০৫টি আসনে জয়ী বিজেপি প্রকাশ্যে তেমন কিছু না বললেও, ঠারেঠোরে তারা বুঝিয়ে দিচ্ছিল যে মুখ্যমন্ত্রী পদ তারা ছাড়তে রাজি নয়। তখন নানা বিকল্প নিয়ে গুঞ্জন শুরু হয় এমনকী, শিবসেনাও ইঙ্গিত দেয় যে তারা নিরুপায় হলে বিকল্প রাস্তা খোলা আছে। অন্যদিকে উপমুখ্যমন্ত্রীর পদ ছাড়ার ব্যাপারে বিজেপি রাজি থাকলেও মুখ্যমন্ত্রী পদ নিয়ে অনড় ছিল শিবসেনা। নিজেদের রাজনৈতিক সততা প্রমাণ করতে হরিয়ানায় বিজেপির সঙ্গে জেজেপির জোট নিয়ে কটাক্ষ করতেও ছাড়েনি। বরং বিজেপির সঙ্গে না গিয়ে, আলাদা ভাবে শিবসেনার বরিষ্ঠ নেতারা রাজভবনে গিয়ে দেখা করেছিলেন রাজ্যপাল ভগৎ সিং কোশিয়ারির (Maharashtra Governor Bhagat Singh Koshyari) সঙ্গে। তবে বিজেপি-শিবসেনার মধ্যে কী সমঝোতা হয়েছে, তা এখনও স্পষ্ট নয়। আরও পড়ুন-Sonia Gandhi Slams Centre on RTI: অন্যায় সিদ্ধান্তকে চাপিয়ে দিতে তথ্য জানার অধিকার আইনকে ধ্বংস করতে চাইছে মোদি সরকার, গর্জে উঠলেন সোনিয়া গান্ধী

বলাবাহুল্য, ঠানের বিধায়ক একনাথ শিণ্ডেই ছিলেন বিগত বিধানসভায় শিবসেনার দলনেতা। তাছাড়া মহারাষ্ট্রে বিজেপি-শিবসেনার জোট সরকারের মন্ত্রীও ছিলেন তিনি।শিবসেনার পরিষদীয় দলের বৈঠকে প্রথমবারের বিধায়ক আদিত্য ঠাকরে তাঁর নাম প্রস্তাব করেন, তাঁকে সমর্থন করেন প্রতাপ শরনায়েক। সূত্রের শিবসেনার প্রধান উদ্ধব ঠাকরে চাইছিলেন না যে তাঁর ছেলে আদিত্যকে এই দায়িত্ব দেওয়া হোক। দাদারে দলের পরিষদীয় সদস্যদের বৈঠকে উদ্ধব ঠাকরে নিজেও উপস্থিত ছিলেন। ওই বৈঠকে কয়েকজন নির্দলও উপস্থিত ছিলেন, তাঁরা শিবসেনাকে সমর্থন করছেন।