Cyclone Nisarga: আজ আলিবাগেই ল্যান্ডফল করতে চলেছে নিসর্গ ঘূর্ণিঝড়, জানালো মৌসম ভবন
স্যাটেলাইট থেকে তোলা ঘূর্মইঝড় নিসর্গর ছবি (Photo Credits: IMD)

মুম্বই, ৩ জুন: আজ আলিবাগেই ল্যান্ডফল করতে চলেছে নিসর্গ ঘূর্ণিঝড় (Cyclone Nisarga)। উপকূলবর্তী এলাকা ঢুকে পড়ার পর ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ের আকার নেবে নিসর্গ। তাই মুম্বই, সুরাট-সহ মহারাষ্ট্র ও গুজরাটের সমস্ত উপকূলবর্তী এলাকায় জারি হয়েছে চূড়ান্ত সতর্কতা। আজ এই দুই রাজ্যের উপকূলবর্তী এলাকা দিয়ে বয়ে যাবে নিসর্গ ঘূর্ণিঝড়। মৌসম ভবনের রিপোর্ট বলছে, আগামী ৬ ঘণ্টার মধ্যেই ১৩ কিলোমিটার বেগে উত্তর মহারাষ্ট্রের উপকূলভাগে ঢুকে পড়বে নিসর্গ ঘূর্ণিঝড়। ঠিক একই সময়ে ১৫৫ কিলোমিটার বেগে নিসর্গ আসবে আলিবাগের দক্ষিণ পশ্চিম দিক থেকে। অন্যদিকে নিসর্গ ঘূর্ণিঝড় ২০০ কিলোমিটার বেগে মুম্বইতে ঢুকবে দক্ষিণ পশ্চিম দিক থেকে।

মহারাষ্ট্রের শিয়রে নাচছে ঘূর্ণিঝড়। তাই কাল সন্ধ্যা থেকেই একের পর এক বজ্রপাত চলছে মুম্বইয়ের বিস্তীর্ণ অংশে। পারেল, মুলুন্দ, গোরেগাঁও, ভাসাই রোড, নভিমুম্বই এই তালিকায় পড়ছে। একই সঙ্গে পালঘর, গ্রেটার মু্ম্বই, রায়গড় ও মুম্বইতেও জারি হয়েছে চূড়ান্ত সতর্কতা। নিসর্গ ঘূর্ণিঝড়ের গতিবিধির আঁচ পেয়ে মহারাষ্ট্রেই জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর ১০টি দলকে মোতায়েন করা হয়েছে। মুম্বইতেই রাখা হয়ছে আটটি দলকে। রায়গড়ে রয়েছে এনডিআরএফ-এর পাঁচটি দল। অন্যদিকে পালঘর ও থানেতে দুটি করে দল মোতায়েন রয়েছে। রত্নগিরিতে দুটি দল, আর সিন্ধুদুর্গে মোতায়েন আছে একটি দল। বিপর্যয় এড়াতে বুধবার একেবারে সাতসকালেই কোলিওয়াড়া ও আলিবাগ এলাকার বাসিন্দাদের সরিয়ে নেয় এনডিআরএফ। এই প্রসঙ্গে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ভ ঠাকরে বলেছেন, যেসব বাসিন্দারা অপেক্ষাকৃত দুর্বল বাড়িতে থাকেন, তাঁদের এই সময় ত্রাণশিবিরে আশ্রয় নিতে হবে। এই প্রক্রিয়াচলাকালীন কোভিড-১৯ সংক্রমণ রুখতে সমস্ত রকম সুরক্ষা বিধি মানতে হবে। আরও পড়ুন-Education Minister & Governor Clashes: বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ-উপাচার্য নিয়োগ নিয়ে রাজ্যপাল ও শিক্ষামন্ত্রীর তীব্র সংঘাত

এখনও ঝড় ওঠেনি অথচ মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধাব ঠাকরের সঙ্গে বার্তালাপ সেরে ফেলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। একইভাবে গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানি ও দমন দিউ-র প্রশাসন এবং দাদরা নগর হাভেলি প্রফুল্ল কুমার প্যাটেলের সঙ্গেও একপ্রস্থ কথা হয়েছে। বার্তালাপের সঙ্গেই কেন্দ্রের যাবতীয় সহায়তার আশ্বাসও দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এটা মনে রাখতে হবে যে ১৯৬১-র পর নিসর্গই হল প্রথম ঘূর্ণিঝড় যা মহারাষ্ট্রের উপকূলে আছড়ে পড়তে চলেছে।