Mamata Banerjee: কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বললেই 'দেশদ্রোহী' তকমা, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সামনে আবেগতাড়িত স্বরা
Mamata Banerjee, Swara Bhasker (Photo Credit: Facebook/Instagram)

মুম্বই, ১ ডিসেম্বর:  ২ দিনের সফরে বর্তমানে মুম্বইতে রয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। উদ্ভব-পুত্র আদিত্যর সঙ্গে দেখা করে বুধবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একটি সাংবাদিক সম্মেলন করেন। যেখানে সাংবাদিকদের পাশাপাশি বলিউডের একাধিক ব্যক্তিত্ব হাজির হন। জাভেদ আখতারকে পাশে নিয়ে বলিউড ব্যক্তিত্ব এবং বিদ্বজনদের ওই সভায় লেখিকা শোভা দে, অভিনেত্রী স্বরা ভাস্করদের (Swara Bhasker)একাধিক প্রশ্নের উত্তর দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ওই সভায় হাজির হন পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু এবং মুখ্যসচিবও।

ভারতের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী কে বলে যখন শোভ দে প্রশ্ন করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে, তখন তিনি হেসে ফেলেন। শুধু তাই নয়, প্রধানমন্ত্রী যে সব সময় রাজনৈতিক দলের নেতাদের হতে হবে, এমন নয়। বর্তমানে যিনি দেশ চালাতে পারবেন, মানুষের হয়ে কথা বলবেন, তিনিও তদেশের প্রধান হতে পারেন বলে মন্তব্য করেন মমতা। এমনকী, শোভা দে-র মতে কার পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হওয়া উচিত, সে বিষয়ে পালটা লেখিকাকেই প্রশ্ন করেন মুখ্যমন্ত্রী (West Bengal CM)।

বুধবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে কাযত আবেগতাড়িত হয়ে পড়েন বলিউড অভিনেত্রী স্বরা ভাস্কর। তিনি অভিযোগ করেন, বর্তমানে শিল্পীদের কণ্ঠরোধ করা হচ্ছে। কেউ যদি কেন্দ্রের সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলে, তাহলে তাঁকে দেশদ্রোহী বলে দাগিয়ে দেওয়া হচ্ছে বার বার। এই এই ধরনের কাজ করা হবে। কেন দেশের মানুষের কথা বলার স্বাধীনতা কেড়ে নেওয়া হবে বলে প্রশ্ন তোলেন স্বরা।

পাশাপাশি স্বরা আরও অভিযোগ করেন, কেন্দ্রীয় সরকারের কোনও নীতির সমালোচনা করলে, তাঁর বিরুদ্ধে ইউএপিএ বলবৎ করা হচ্ছে। বর্তমানে জাতীয় রাজনীতিতে মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায় যেভাবে প্রাসঙ্গিক হয়ে উঠছেন, তাতে তিনি ক্ষমতায় এলে ইউএপিএ (UAPA) নিয়ে কী করবেন বলে প্রশ্ন তোলেন স্বরা।

আরও পড়ুন:  Roopa Ganguly: রাজ্য নেতৃত্বের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে বিজেপির ভার্চুয়াল বৈঠক ছাড়লেন রূপা গঙ্গোপাধ্যায়

যার উত্তর মমতা বন্দ্যপাধ্যায় বলেন, ইউএপিএ নামেক একটি আইন রয়েছে। বাইরের শত্রুদের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে ওই আইন বলবৎ কিন্তু বর্তমানে তার অপব্যবহার করা হচ্ছে বলে দাবি করেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, কেন্দ্রের কোনও সংস্থার বিরুদ্ধে তাঁর কোনও ব্যক্তিগত রোষ নেই। তবে যেভাবে বর্তমানে কখনও সিবিআই, কখনও ইডি বা কখনও ইউএপিএ-র ব্যবহার করা হচ্ছে, তা একেবারেই অনুচিত বলে মন্তব্য করেন মমতা। এমনকী, পশ্চিমবঙ্গে কতজনের বিরুদ্ধে ইউএপিএ বলবৎ করা হয়েছে, তা তাঁদের আদতে মনেই নেই বলেও মন্তব্য করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।