BJP Leader Gopal Bhargava: ‘ছোট থেকে আমিষ খেলে আমরা নরখাদকে পরিণত হতে পারি’ আজব যুক্তি দিলেন বিজেপি নেতা গোপাল ভার্গব
গোপাল ভার্গব (Photo Credits: Facebook)

ভোপাল, ৩১ অক্টোবর: ‘যদি ছোট থেকে আমরা আমিষ খাবার খাই, তাহলে নরখাদকে পরিণত হয়ে যেতে পারি।’নিরামিষ খাবারের (Veg Food) পক্ষে সওয়াল করতে গিয়ে ভরা বিধানসভায় এমনই যুক্তি দিলেন মধ্যপ্রদেশের বিজেপি বিধায়ক গোপাল ভার্গব (BJP Leader Gopal Bhargava)। আমিষ খাবারের কুফল সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে নেতা বলেন, ‘ভারত যে সংস্কার মেনে চলে সেই সনাতন সংস্কৃতিতে মাংস খাওয়া নিষিদ্ধ। এটা না মেনে যদি ছোটবেলা থেকে আমরা মাংস খেতে থাকি, তাহলে একদিন নরখাদকে পরিণত হব। তাছাড়া অপুষ্টিতে ভোগা একটি সরকারের কাছ থেকে এর থেকে বেশি কী আশা করতে পারি? যারা ডিম খেতে চাইছে না তাদেরও ডিম দিচ্ছে ওরা। এভাবে মানুষকে যা খুশি খাওয়ার জন্য জোর করা যায় না।’

সম্প্রতি মধ্যপ্রদেশের স্কুলগুলির মিড ডে মিলে (Mid Day Meal) ডিম (Egg) খাওয়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমল নাথের (Kamal Nath) মন্ত্রিসভা। এর প্রেক্ষিতে গতকাল বুধবার সরকারের এই সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা করেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা গোপাল ভার্গব। রাজ্যের বিরোধী দলনেতার এমন বক্তব্যে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়ে যায়। ভাইরাল (Viral) হয়ে যা এখন উঠে এসেছে সংবাদ শিরোনামে (Headline)। তবে বিজেপি নেতার এমন বক্তব্যে কোনরকম প্রভাবই পড়েনি সরকারি সিদ্ধান্তে। এ নিয়ে বুধবারই মধ্যপ্রদেশের নারী ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রী ইমারতী দেবী (Imarati Devi) স্পষ্ট করে দেন- অপুষ্টির সঙ্গে মোকাবিলা করার জন্য আগামী মাস থেকে অঙ্গনওয়াড়ি স্কুলগুলির মিড ডে মিলে ডিম দেওয়া চালু হবে। আরও পড়ুন: Radio Kashmir became All India Radio from today: আজ থেকে উপত্যকার রেডিও কাশ্মীর হয়ে গেল অলইন্ডিয়া রেডিও, কেন জানেন?

ইমারতী দেবী আরও বলেন, ‘বিরোধীরা যা খুশি তাই বলতে পারে। অপুষ্টিতে ভোগা শিশুদের যে ডাক্তাররা চিকিৎসা করছেন তাঁরা ডিম খাওয়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন। ডিম শিশুদের স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। তাই ডিম ভালো। তাছাড়া ডিম কখনই আমিষ খাবারের তালিকায় পড়ে না, এটা নিরামিষ খাবারের মধ্যেই পড়ে।’ তাই সরকারি পরিকল্পনায় (Government Project) কোনও পরিবর্তন হচ্ছে না।