Kolkata: মৃত ভাইয়ের দেহ আঁকড়ে পড়ে রইলেন বোন, ফিরল রবিনসনকাণ্ডের স্মৃতি
প্রতীকী ছবি (Photo Credits: Flickr)

কলকাতা, ২৮ আগস্ট: Narendrapur Mentally Unstable Woman stays With Borther's Dead Body: ফের শহর কলকাতায় (Kolkata) রবিনসন (Robinson) কঙ্কাল কাণ্ডের (Skeleton Case) নজির নরেন্দ্রপুরে (Narendrapur)। নরেন্দ্রপুরে এক মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলা তাঁর ভাইয়ের মৃতদেহ আঁকড়ে পড়েছিলেন। টাইমস অফ ইন্ডিয়ার (TOI) এক রিপোর্টে প্রকাশিত, এক ৭০ বছর বয়সী আইনজীবী প্রায় তিন দিন আগে তাঁর মৃত্যু হয়। আশেপাশের লোকজনরা কেউ জানতেনই না তাঁর মারা যাওয়ার কথা। প্রতিবেশিরা পচা দুর্গন্ধ পেয়ে পুলিশে খবর দেন।

ওই ব্যক্তিটি তাঁর ৬৫ বছর বয়সী মানসিক ভারসাম্যহীন বোনের সঙ্গে থাকতেন। তদন্ত করে দেখা গেছে, ওই ব্যক্তির মৃত্যু স্বাভাবিক। কিন্তু বোনের মানসিক ভারসাম্যহীনতার কারণে পাড়া প্রতিবেশীকে ঘটনাটি জানাতে সক্ষম ছিলনা। ফলে কেউ ঘটনাটি জানতেই পারেনি। ওই মহিলা গৃহকর্মীদের একবার বলেছিলেন, ঘরের থেকে মৃতদেহ বের করে নিতে। কিন্তু কেউ বিষয়টি বিশেষ গুরুত্ব না দিয়েই চলে যায়। প্রতিবেশীরা জানান, তাদের পরিবারের কেউ পাড়ায় বিশেষ কথাবার্তা বলতেন না। কারোর সঙ্গে মিশতেনও না। আরও পড়ুন, গণধর্ষণের সাজা পেল নির্যাতিতা , নাবালিকাকে মাথা মুড়িয়ে ঘোরানো হল গোটা গ্রাম

রবিনসন কঙ্কাল কাণ্ডের ঘটনায় ৪৩ বছর বয়সী পার্থ দেও (Partha De) একাকিত্বের বেদনায় তাঁর মৃত দিদি ও মৃত কুকুরের সঙ্গে একমাস কাটান। ঘটনায় উদ্ধার হয়েছিল তিনটি কঙ্কাল। তাঁর ৭৭ বছর বয়সী বাবার দগ্ধ দেহ পাওয়া যায় বাথরুম থেকে। এই ঘটনার পর পার্থ দেও নিজের ফ্ল্যাটে আত্মহত্যা করেন। এর আগে তিনি পাভলভ মানসিক হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। তারপর মিশনারিজ অফ চ্যারিটি তেও কিছুদিন ছিলেন।