Chitpore Canal Circular Bridge Shout Down: পিচের পরতে বেড়েছে ওজন, সংস্কারের স্বার্থে ৫ রাত বন্ধ থাকছে চিৎপুর সেতু
চিৎপুর সেতু (Photo Credit: Wikipedia)

কলকাতা, ২৬ ডিসেম্বর: টালার পর এবার চিৎপুর সেতু (Chitpore Canal Circular bridge), রক্ষণাবেক্ষণের কাজের জন্য আজ বৃহস্পতিবার রাত থেকে টানা সোমবার পাঁচ রাত যান চলাচল বন্ধ থাকবে। তবে দিনের বেলা যেমন গাড়ি চলছে তেমনই চলবে। রাতে যেহেতু যানবাহনের চাপ অনেক কম থাকে তাই তখনই সেতুর রক্ষণাবেক্ষণে সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রশাসন। এমনিতেই টালা সেতুর সংস্কারের জন্য আগেই যাত্রীবাহী বাস ও পণ্যবাহী লড়ি চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় গোটা উত্তর কলকাতার (North Kolkata) যানবাহনের গতি অনেকটাই শ্লথ হয়ে গিয়েছে। সেইসব যাত্রীবাহী বাস ও লড়ির চাপ গিয়ে পড়েছে চিৎপুর সেতুতে। এমনিতেই বহু পুরোনো চিৎপুর সেতু বার বার সংস্কারের জেরে পিচের পরতে মোটা হয়ে গিয়েছে ওজনে ভারী সেতুর উপর থেকে এত গাড়ির নিত্য যাতায়াতে বাড়তে পারে বিপদ।

তাই সেতুর পিচ চেঁছে তুলে ফেলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। দিনের বেলা এই কাজ করলে উত্তর কলকাতা একেবারেই অবরুদ্ধ হয়ে পড়বে। সেকারণে রাতেই যান চলাচল বন্ধ রেখে করা হবে কাজ। বৃহস্পতিবার থেকে সোমবার এই কয়েকদিন রাতে চলবে কাজ। এই সময় বিটিরোড থেকে কলকাতাগামী গাড়িগুলিকে পি কে মুখার্জি রোড ও মন্মথ গাঙ্গুলি রোড (P K Mukherjee Road-Manmatha Ganguly Road) দিয়ে ঘুরিয়ে দেওয়া হবে। অন্য দিকে, উত্তরমুখী গাড়িগুলিকে চিৎপুর সেতু দিয়ে যাওয়ার বদলে ভূপেন বসু অ্যাভিনিউ এবং বাগবাজার স্ট্রিট দিয়ে পাঠানো হবে বি টি রোডে। আরও পড়ুন-West Bengal Weather Update: গ্রহণের ঘায়ে বেসামাল শীত, বর্ষবরণের আগে বৃষ্টিতে নাকাল বঙ্গবাসী

টালা সেতুতে যান চলাচল নিয়ন্ত্রিত হওয়ার ফলে চিৎপুর লক গেট উড়ালপুল এবং চিৎপুর সেতু দিয়ে যাতায়াতকারী গাড়ির সংখ্যা বেড়েছে। প্রশাসনের খবর, বাগবাজারে সার্কুলার ক্যানালের উপরে থাকা চিৎপুর সেতুতে প্রচুর গাড়ির চাপ পড়ছে। সেই তালিকায় রয়েছে বেলগাছিয়া সেতু ও আরজি কর রোড। একে তো বহু পুরনো সেতু তায় আচমকা এত বেশি যানবাহনের যাতায়াতে যে কোনও দিন ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। সেই আশঙ্কা থেকেই আগেভাগে সেতুর সংস্কারের কাজ শুরু হল। দিনের পর দিন যান চলাচল বন্ধ রেখে আমূল সংস্কার এখন সম্ভব নয়। তাই রাতে শুধু সেতুর ওজন কমাতে তাপ্পি মারা পিচ চেঁছে ফেলার ব্যবস্থা হয়েছে। নতুন বছর পড়ার আগেই চিৎপুর সেতুকে যান চলাচলের উপযোগী করে তুলতে চাইছে প্রশাসন।