জয় শ্রীরাম লেখা ১০ লাখ পোস্টকার্ড মমতাকে পাঠাচ্ছেন অর্জুন সিং
মমতা ব্যানার্জি ( File Pic )

কলকাতা, ১জুন,২০১৯:‌ ‘‌জয় শ্রীরাম’‌ (jai Shri Ram) ধ্বনি নিয়ে তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি। ভোটের আগে ঝাড়গ্রাম, আর ভোটের পরে ভাটপাড়ায় জয় শ্রীরাম ধ্বনিতে মমতাকে বিদ্ধ করেছে বিজেপি (BJP)। মোদির শপথ গ্রহন অনুষ্ঠানের দিন অর্জুনের গড় ভাটপাড়ায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির (Mamata Banerjee)কনভয় দেখেই জয় শ্রীরাম স্লোগান দিতে থাকেন একদল যুবক। রাগে গাড়ি থেকে নেমে তাঁদের দিকে তেড়ে যান মমতা। সেখানে কর্তব্যরত পুলিসকর্মীদের রীতিমত হুমকি দিয়ে মমতা বলেন, সকলকে ধরতে হবে, পুলিস কাজে গাফিলতি করলে তাকেও রেয়াত করা হবে না।

মঙ্গলবার ফের তৃণমূল কংগ্রেস নেতা জ্যোতিপ্রিয় মল্লিককে দেখে বিক্ষোভ শুরু হয় কাঁচরাপাড়ায়। সেখানে বৈঠক করছিলেন সুজিত বসু, মদন মিত্র, নির্মল ঘোষ সহ তৃণমূল নেতৃত্ব। সেখানেও জয় শ্রীরাম স্লোগান দেন বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। সেখানে তৃণমূল নেতাকর্মীরা বৈঠক করছিলেন। বিজেপি কর্মী সমর্থকরা পার্টি অফিস ঘেরাও করে জয় শ্রীরাম স্লোগান দিতে দিতে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। কোনক্রমে সেখান থেকে পালিয়ে বাঁচেন মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। পরিস্থিতি সামাল দিতে লাঠিচার্জ করে পুলিস। তারপরেই উত্তাল হয়ে ওঠে গোটা এলাকা। পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন বিজেপি কর্মী সমর্থক।

এদিকে নৈহাটির ঘটনায় জয় শ্রীরাম বলার জন্য যে দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিস। তাদের মুক্তির দাবিতে নৈহাটি থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখান বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং(Arjun Sing)। মমতার এই প্রতিক্রিয়ার পরে ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ জানিয়েছেন, জয় শ্রীরাম লেখা ১০ লাখ পোস্টকার্ড তিনি তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রীকে পাঠাবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। পুলিসকে রীতিমত হুঁশিয়ারি দিয়ে অর্জুন বলেছেন, বিজেপি কর্মী সমর্থকদের গায়ে হাত পড়লে নন্দীগ্রাম হতে বেশি সময় লাগবে না।