World Cancer Day: বিশ্ব ক্যান্সার দিবসে জেনে নিন ক্যান্সার প্রতিরোধে কোনটি খাওয়া ও কোনটি এড়িয়ে চলা উচিত

বর্তমানে ক্যান্সার রোগে আক্রান্তের সংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই মারাত্মক রোগ জিনগত, পরিবেশগত বা অন্য অনেক কারণে হতে পারে। বিজ্ঞান ও চিকিৎসা ক্ষেত্রে এত অগ্রগতি হওয়া সত্ত্বেও, অনেকেই ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করতে করতে একসময় হেরে যান। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সময়মতো এই রোগকে সনাক্ত না করতে পারা এই লড়াইয়ে হেরে যাওয়ার একটি বড় কারণ। সবচেয়ে উদ্বেগজনক হল ক্যান্সার শুধু প্রাপ্তবয়স্ক এবং বয়স্কদেরই হয় না, অল্পবয়সী, শিশু অর্থাৎ যেকোনো বয়সের মানুষের এই মারাত্মক রোগ হতে পারে।

খাওয়ার ধরন অনেক সময় ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়িয়ে দিতে পারে বলেও মনে করা হয়। তাই খাবারের তালিকা সঠিক হওয়া খুবই জরুরি। ক্যান্সারের বিষয়ে মানুষকে সচেতন করতে প্রতি বছর ৪ ফেব্রুয়ারি পালন করা হয় বিশ্ব ক্যান্সার দিবস (World Cancer Day)। এবার জেনে নেওয়া যাক ক্যান্সার প্রতিরোধে খাদ্য তালিকায় কী ধরনের খাবার রাখা উচিত এবং কী ধরনের খাবার এড়িয়ে চলা উচিত।

  • আধুনিক জীবনধারায় মানুষের খাদ্য তালিকায় প্রক্রিয়াজাত খাবার পরিমাণ ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। এটি স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। প্রক্রিয়াজাত খাবারে পুষ্টির পরিমাণ কম থাকে, অন্যদিকে সংরক্ষণকারী বস্তু, চিনি, এই সব কিছুর পরিমাণ বেশি থাকে। যার কারণে শরীরে মেদ এবং রক্তে শর্করার মতো সমস্যা বেড়ে যায়। প্রক্রিয়াজাত খাবার বেশি খেলে ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়তে পারে।
  • মুখ, পাকস্থলী, মূত্রাশয় এবং ফুসফুসের ক্যান্সারের প্রধান কারণ হল মদ্যপান, পান মসলা এবং ধূমপান। তাই এসব থেকে দূরে থাকাই ভালো। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিবেদন অনুযায়ী, তামাক সেবনের কারণে প্রতি বছর প্রায় ৮০ লক্ষ মানুষ নিজের প্রাণ হারায়।

ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে খাদ্যতালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা উচিত অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ খাবার। বিশেষজ্ঞদের মতে, ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে সবুজ শাকসবজি, রসুন, পেঁয়াজ এবং ভিটামিন এ, বি এবং সি সমৃদ্ধ ফল খাওয়া উচিত। বার্লি, কর্ন, ওটসের মতো গোটা শস্যও অন্তর্ভুক্ত করা যেতে পারে খাদ্য তালিকায়।