Kangana Ranaut: 'কঙ্গনার পদ্মশ্রী ফেরানো হোক,' ভারতের স্বাধীনতা 'ভিক্ষা' মন্তব্যে দেশে জোড়া ক্ষোভ
Kangana Ranuat (Photo Credit: Twitter)

মুম্বই, ১২ নভেম্বর: কঙ্গনা রানাউতের (Kangana Ranaut) ভারতের স্বাধানীতা মন্তব্য নিয়ে জোরদার বিতর্ক শুরু হয়েছে গোটা দেশ জুড়ে। ভারতের স্বাধীনতা নিয়ে কঙ্গনা কীভাবে এই ধরনের মন্তব্য করেন, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেন কংগ্রেসের একাধিক নেতা।

কংগ্রেস (Congress) নেতা আনন্দ শর্মা (Anand Sharma) নিজের ট্যুইটার হ্যান্ডেলে কঙ্গনার ভারতের স্বাধীনতা মন্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করেন। তিনি বলেন, কঙ্গনার এই মন্তব্য অনভিপ্রেত। রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের উচিত কঙ্গনার পদ্মশ্রী (Padmashri) সম্মান ফেরৎ নেওয়া। কঙ্গনা স্বাধীনতা সংগ্রামীদের অপমান করেছেন। মহাত্মা গান্ধী, সর্দার বল্লভভাই প্য়াটেল, ভগৎ সিং, চন্দ্রশেখর আজাদদের অপমান করছেন বলেও তোপ দাগেন আনন্দ শর্মা।

আরও পড়ুন: Kangana Ranaut: 'কঙ্গনাকে গ্রেফতার করে পদ্মশ্রী ফেরানো হোক', ভারতের 'স্বাধীনতা' ২০১৪ সালে মন্তব্যের পর দাবি নবাব মালিকের

কঙ্গনার ভারতের (India) স্বাধীনতা মন্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করেন হরিয়ানার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ভূপেন্দ্র সিং হুডা। কঙ্গনার ওই মন্তব্যকে বোকা বলে দাবি করেন ভূপেন্দ্র সিং হুডা।

হিন্দুস্থানি আওয়াম মোর্চার সভাপতি জিতান রাম মাঝিও কঙ্গনার কথার তীব্র বিরোধিতা করেন। কঙ্গনাকে বয়কট করা উচিত প্রত্যেকটি চ্যানেলের।

কঙ্গনা যে ধরনের মন্তব্য করেছেন ভারতের স্বাধীনতা নিয়ে, তাতে অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার মামলা দায়ের করা উচিত বলে দাবি করে শিবসেনা। কঙ্গনার পদ্ম সম্মানও ফিরিয়ে নেওয়া উচিত বলে দাবি করা হয় শিবসেনার তরফে। কঙ্গনাকে গ্রেফতার করা উচিত বলে দাবি করে শিবসেনার জোটসঙ্গী এনসিপি।

এনসিপি নেতা নবাব মালিক বলেন, কঙ্গনা নিশ্চয়ই 'ভাং'-এর নেশা করে ওই ধরনের মন্তব্য করেছেন। কঙ্গনা স্বাধীনতা সংগ্রামীদের অপমান করেছেন বলেও অভিযোগ করেন নবাব মালিক (Nawab Malik)।

কঙ্গনার বিরুদ্ধে মুখ খোলেন বরুণ গান্ধী। ভারতের স্বাধীনতা নিয়ে কঙ্গনা যে মন্তব্য করেন, তাঁকে পাগলামি অথবা বিশ্বাসঘাতকতা, কী বলে অভিহিত করবেন বলে প্রশ্ন তোলেন বরুণ গান্ধী। সবকিছু মিলিয়ে কঙ্গনার মন্তব্যের জেরে প্রায় গোটা দেশ জুড়ে শোরগোল শুরু হয়েছে।